ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের পরবর্তী প্রধান কোচ হতে চান অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি স্পিনার শেন ওয়ার্ন।

স্কাই স্পোর্টস পডকাস্টে আলোচনাকালে এই আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ওয়ার্ন।

তিনি জানান, ইংল্যান্ডের কোচ হতে চাই। ইংলিশদের কোচ হওয়ার এখনই আদর্শ সময়।

সর্বশেষ অ্যাশেজে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৪-০ ব্যবধানে সিরিজ হারে ইংল্যান্ড। সিরিজে ওমন নাকানিচুবানি খাওয়ার পর, ইংল্যান্ডের ক্রিকেটে ব্যাপক পরিবর্তন ঘটে। ব্যবস্থাপনা পরিচালকের পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয় অ্যাশলে গাইলসকে, বিদায় নিতে হয় প্রধান কোচ ক্রিস সিলভারউড, ব্যাটিং কোচের পদ থেকেও সড়ে যেতে হয় গ্রাহাম থর্পকে।

অ্যাশেজ খেলা দলেও ব্যাপক পরিবর্তন করে আসন্ন ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের স্কোয়াড সাজায় ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)।

ওই সফরের জন্য অন্তবর্তীকালীন কোচ হিসেবে পল কলিংউডকে নিয়োগ দিয়েছে ইসিবি। ক্রিকেট মাঠে ঘুড়ে দাঁড়াতেই এমন পালা বদল ইসিবির। গেলো বছর টেস্টে ১৫ ম্যাচ খেলে মাত্র চার জয় পেয়েছে ইংল্যান্ড।

এ অবস্থায় ইংল্যান্ডের কোচ হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন ওয়ার্ন। তিনি বলেন, ‘ইংল্যান্ডের কোচ হতে চাই আমি। এখনই তাদের কোচ হওয়ার আদর্শ সময়।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমার মনে হয়, আমি ভালই করব, ওদের নিয়ে অনেক কাজ করার আছে। ইংল্যান্ডে অনেক ভালো মানের খেলোয়াড় আছে, দলটার গভীরতা অনেক। কিন্তু কিছু-কিছু মৌলিক বিষয় ঠিক করতে হবে। যেমন বেশি নো-বল করা যাবে না। অতিরিক্ত ক্যাচ ছাড়া যাবে না। দলটায় খেলোয়াড় আছে, তারা শুধু ঠিকঠাক পারফর্ম করতে পারছে না।’

গুঞ্জন আছে, ইংল্যান্ডের নতুন কোচ হওয়ার দৌঁড়ে আছেন সদ্যই অস্ট্রেলিয়ার দায়িত্ব ছাড়া জাস্টিন ল্যাঙ্গার। ল্যাঙ্গারের অধীনে প্রথমবারের মত টি-টোয়েন্টি জয় করেছে অস্ট্রেলিয়া। এরপর অ্যাশেজে ইংল্যান্ডকে বিধ্বস্ত করে অসিরা। তারপরও ল্যাঙ্গারকে কোচের পদে ধরে রাখতে পারেনি অস্ট্রেলিা। তাই বোর্ডের সমালোচনাও করেছেন ওয়ার্ন।

তিনি বলেন, ‘ল্যাঙ্গারের চলে যাওয়ার প্রক্রিয়াটাতে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ভূমিকা খুবই লজ্জাজনক। বিশ্বকাপের পর অ্যাশেজ জয়, এর চেয়ে ভালো ফল আমাদের জন্য হতে পারতো না। কিন্তু ল্যাঙ্গার কারো সমর্থন পায়নি। অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক বা অন্য কোনো খেলোয়াড়কে দেখিনি ল্যাঙ্গারের সমর্থনে কিছু বলেছে। আমার কাছে, এভাবে ল্যাঙ্গারের চলে যাওয়ার বিষয়টা খুবই হতাশাজনক বলে মনে হয়েছে।’

ওয়ার্ন আরো বলেন, ‘কেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া সরাসির তার চুক্তি নবায়ন করছে না, তা বলতে পারেনি। কিন্তু তারা গ্রীষ্মের শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করবে। দেখুন সেরা প্রার্থী কে হয় এবং ল্যাঙ্গার এখনো সেরা প্রার্থী হলে, তাকে আবারো নিয়ে নিন! আমি ইংল্যান্ডে থাকলে, তার দিকে ঝাঁপিয়ে পড়তাম।’