দেশব্যাপী চলমান ধর্ষণ ও হত্যার প্রতিবাদে কক্সবাজার জেলার বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও সর্বসাধারণ এর উদ্যোগে ঈদগাহতে মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার বিকাল ৪ টার সময় ঈদগাহ বাস স্টেশন আনুমিয়া পেট্রোল পাম্প এলাকায় মানববন্ধন কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। এসময় ১৮টি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন অংশ গ্রহণ করে।

সংগঠন গুলো হলঃ

বৃহত্তর ঈদগাহ ব্লাড ডোনার’স সোসাইটি, ইসলামপুর ব্লাড ডোনার’স সোসাইটি, নতুন অফিস ব্লাড ডোনার’স সোসাইটি, মানব কল্যাণ ২ টাকার ফাউন্ডেশন কক্সবাজার, খুটাখালী ব্লাড কল্যাণ সোসাইটি, সোনালী লাইফ ব্লাড কল্যাণ পরিষদ, রামু ব্লাড ডোনার’স এসোসিয়েশন, খুরুশকুল ব্লাড ডোনার’স ব্যাংক,সেবা ব্লাড ডোনার’স সোসাইটি বাংলাদেশ, সেইভ দ্য ফিউচার,তারুণ্য সংসদ বাংলাদেশ, বৃহত্তর ঈদগাহ পথ শিশু ব্লাড এসোসিয়েশন, সৃজন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, বাইশারী ব্লাড ডোনেটিং ক্লাব, সিইএইচআরডিএফ, কক্সবাজার ব্লাড ডোনেটিং ক্লাব, স্বপ্নবুনন(একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন), মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম ঈদগাহ থানা কমিটির সভাপতি সেফাইল উদ্দিন, সহ সভাপতি মোঃ শফিউল আজাদ।

এসময় বক্তব্য রাখেন বৃহত্তর ঈদগাহ ব্লাড ডোনার’স সোসাইটি এডমিন আরাফাত সানি,খুটাখালী ব্লাড কল্যাণ সোসাইটি এডমিন, মুরাদ,ওমর ফারুক,হুমাইয়ুন,রামু ব্লাড ডোনার’স এসোসিয়েশন এডমিন,আজিজুর রহমান রাজু তারুণ্য সংসদ বাংলাদেশ এডমিন,এম এ সাঈদ,সৃজন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন,নুরুল আবছার,আজিজুর রহমান রাজু, এবং স্বেচ্ছাসেবকদের হয়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ঈদগাহ শাখা কমিটির নেতা কাজি আবদুলাহ।

এসময় অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দুই বাংলা অনলাইন সাংবাদিক ফোরাম কক্সবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ও মানব কল্যাণ দুই টাকার ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্টাতা পরিচালক মোঃ ওসমান গণি ইলি।

বক্তব্য কালে বলেন ধর্ষণকারীদের জনসম্মুখে এনে কঠোরতম শাস্তি ও ফাঁসি হলে হয়তো ধর্ষণকারীরা ধর্ষণ করবে না। আজ বাংলাদেশে যে হারে বাড়ছে খুন ধর্ষণ মাদক ব্যবসা দূর্নীতিবাজ। এইটা যদিও নিয়ন্ত্রণ করা না যায় তাহলে বাংলাদেশের জন্য বড় ধরনের ক্ষতি কারণ হয়ে দাড়াতে পারে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

অতি অল্প সময়ের মধ্যে ধর্ষণকারী,খুনী,মাদক ব্যাবসায়ীদের ও দূর্নীতিবাজদের গ্রেপ্তার করে দেশে সু-শৃঙ্খলা ফিরে আনার জন্য সময়ের দাবি জানান বক্তৃতারা।