উখিয়ায় দুই দল অস্ত্রধারীদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনায় মোহাম্মদ জাবেদ (২০) নামে একজন রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নিহত হয়েছেন।
নিহত সন্রত্রাসী উখিয়া  উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের তানজিমারখোলা রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে ডি/৪ ব্লকের বাসিন্দা ও রোহিঙ্গা নাগরিক মোহাম্মদ ইসলামের ছেলে।

সোমবার দিবাগত রাত একটার দিকে উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের তানজিমারখোলা রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে ডি/৮ ব্লকের এ ঘটনাটি ঘটেছে।
এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন কক্সবাজার ১৬ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ান (এপিবিএন) এর অধিনায়ক পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম তারিক।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও এপিবিএন সূত্র জানায়, সোমবার রাতে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী মোজাম্মেল ওরফে শেখ ও মৌলভী ইউনুসের নেতৃত্বে ১০-১২ জন অস্ত্রধারী সদস্য নিয়ে ডি/৮ ব্লকের রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় স্থানীয় পালংখালীর ঘোনারপাড়ার অপর একটি সন্ত্রাসী দলের নুরুল হাকিম ওরফে মনুইয়া নেতৃত্বে ৭-৮ জন তাদের পথ রোধ করেন এবং রাতের বেলায় রোহিঙ্গা শিবির সংশ্লিষ্ট এলাকায ঘোরাঘুরি না করতে নিষেধ করেন।দু’পক্ষের মধ্যে কথা- কাটাকাটির এক পর্যায়ে সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে দু’পক্ষের মধ্যে ৩-৪ রাউন্ড গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে ।

ওই সময় উভয় পক্ষের গোলাগুলিতে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের ডি/৪ ব্লকের বাসিন্দা সন্ত্রাসী মোহাম্মদ জাবেদ গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরের স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র নেয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক জাবেদকে মৃত ঘোষণা করেন।

অধিনায়ক পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তারিকুল ইসলাম তারিক বলেন, নিহত রোহিঙ্গা নাগরিকের লাশটি উদ্ধার করে শিবিরের ইনচার্জ (সিআইসি) কার্যালয়ে রাখা হয়েছে। লাশটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানোর কাজ চলছে এবং এ ঘটনায় মামলার প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।