উখিয়ার সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ে মাঠে সরকারি ভবণ নির্মাণকে কেন্দ্র করে একদল উশৃংখল জনতা স্কুল শিক্ষক ও উপজেলা প্রশাসনের উপর হামলা চালিয়েছে। এসময় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) সরকারি গাড়ীতে ভাংচুর চালায়। এ ঘটনায় স্কুল শিক্ষক,পুলিশ সদস্যসহ ২০ জন আহত হয়েছে। পুলিশ তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে ২জনকে আটক করেছে।

রোববার ( ০২মে) দুপুর ২টার দিকে এই ঘটনাটি ঘটে। ঘটনার পর থেকে পরিস্থিতি থমথমে বিরাজ করলেও বর্তমানে প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণে স্বাভাবিক রয়েছে।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোনারপাড়া উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কুল মাঠে সরকারি ভবন নির্মাণ করার জন্য সংশ্লিষ্ঠ ইঞ্জিনিয়ারসহ স্কুলের শিক্ষকরা উপস্থিত হয়ে খুঁটি স্থাপনের সময় আবু ছৈয়দ ফজলী ও মোহাম্মদ হোসনের নেতৃত্বে একদল উশৃংখল জনতা স্কুল শিক্ষকদের উপর হামলা চালায়৷

এতে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মিলন বড়ুয়া, সহকারি শিক্ষক বাবুল ও শামশুল আলম ভুলু গুরুতর আহত হয়। তাদেরকে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া অবৈধ জনতা স্কুলের তালা, সিসি ক্যামরা, দরজা, জানালা ভাংচুর করে।

পরে খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উখিয়া সহকারি কমিশনার (ভূমি) ঘটনাস্থলে পৌঁছলে সংঘবদ্ধ জনতা দুই কর্মকর্তার গাড়ীতে ইট-পাটকেল ছুড়ে সরকারি গাড়ীর গ্লাস ভাংচুর করে। পুলিশ ফাঁকা টিয়ারসেল নিক্ষেপ করলে উশৃংখল জনতা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। ওই সময় দেলোয়ার ও হাসিনা বেগম আহত হয়। তাদেরকেও উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে৷

পুলিশ এ ঘটনায় অভিযান চালিয়ে আবু ছৈয়দ ফজলি ও মোঃ কালু নামের ২ জনকে আটক করে

৷শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত উখিয়া-টেকনাফের সার্কেল এডিশনাল এসপি শাকিল আহমেদ ও অফিসার ইনচার্জ আহাম্মদ সঞ্জুর মোরশেদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত রয়েছে এবং পুলিশি অভিযান অব্যাহত রেখেছে।