বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী বলেছেন, কক্সবাজারে পর্যটন কেন্দ্রগুলো খোলা যাবে কিনা, তা পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে। প্রথমে খোলার সিদ্ধান্ত নিলেও করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ হওয়ায় পরে সিদ্ধান্ত পেছানো হয়েছে। এখন করোনার সার্বিক পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। একটু উন্নতি হলেই পর্যটন কেন্দ্র খুলে দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার সকালে কক্সবাজার বিমানবন্দরের নির্মাণাধীন কাজ পরিদর্শনকালে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘কক্সবাজার বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উন্নীতকরণের জন্য অবকাঠামো নির্মাণকাজ প্রায় শেষের দিকে। নির্মাণ ও আনুষাঙ্গিক কাজ পুরোপুরি শেষ হলেই কক্সবাজার বিমানবন্দরে আন্তর্জাতিক বিমান চলাচল করবে। ’

পরিদর্শনকালে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোকাম্মেল হোসেন, বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান এয়ারভাইস মার্শাল এম. মফিদুর রহমান, পর্যটন কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান মো. হান্নান মিয়া, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশীদ, কক্সবাজার বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপকসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে কক্সবাজার পর্যটন শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্টরা পর্যটন শিল্প স্বাস্থ্যবিধি পালন সাপেক্ষে দ্রুত খুলে দেওয়ার জন্য বিভিন্নভাবে দাবি জানিয়ে আসছেন। করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের বিধিনিষেধ আরোপের পর থেকে কক্সবাজারের পর্যটন শিল্প বন্ধ রয়েছে।