ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে কী চাকরি হবে? বাড়ির বড়দের থেকে এমন ধরনের কত কথাই না শুনতে হয়। কিন্তু একবার ভেবে দেখুন তো ভালো ঘুমাতেই পারলেই যদি পেশাগত জীবনে তড়তড়িয়ে উন্নতি হত, তবে কেমন হয়? বাস্তবে এমনই একটি ঘোষণা দিয়েছে ভারতের বেঙ্গালুরুরের ‘ওয়েকফিট’ সংস্থা। খবর সংবাদ প্রতিদিনের।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,  ‘ওয়েকফিট’ সংস্থা কর্মী নিয়োগ করবে।

কিন্তু আপনার শিক্ষাগত যোগ্যতা কী, আপনার কোন দিকে কেমন দক্ষতা রয়েছে, সেসব ওই সংস্থার কর্মকর্তার জানার প্রয়োজন নেই। কর্মী নিয়োগের জন্য ওই সংস্থা শুধুমাত্র জানতে চায় আপনার ঘুমানোর ক্ষমতা কেমন? মানে সারা দিনে ঠিক কতক্ষণ নিশ্চিন্তে ঘুমাতে পারেন আপনি।

প্রার্থীকে বাছাই করার পর তার কাউন্সেলিংয়ের বন্দোবস্ত করবে ওই সংস্থা। কাউন্সেলিংয়ের পরই শুরু হবে কাজ।

সংস্থার দাবি, ১০০ দিন ৯ ঘণ্টা করে ঘুমাতে হবে। সংস্থার শর্তপূরণ করতে পারলেই মিলবে ১ লাখ টাকা। তবে ১০০ দিনে ৯ ঘণ্টা করে ঘুমানোর পরিবর্তে এক ঘণ্টা কম ঘুমালেও টাকা মিলবে না।

সংস্থার মতে, ব্যস্ততার যুগে অনেকেই ঘুমের দিকে নজর দেন না। তার ফলে নানা ধরনের অসুস্থতাও বাড়ছে।

ঘুমেরও যে যথেষ্ট প্রয়োজনীয়তা রয়েছে, সে বিষয়ে সকলকে ওয়াকিবহাল করতে এই উদ্যোগ। গত বছর থেকে সংস্থা এই আজব কাজের কথা ভেবেছেন। সেই অনুযায়ী কর্মী নিয়োগও করা হবে।

গত বছরে ১ লাখ ৭০ হাজার জন এই কাজে যোগ দিয়েছিলেন। তবে তার মধ্যে মাত্র ২৩ জনই একশো দিন ৯ ঘণ্টা করে ঘুমিয়ে এক লাখ টাকা উপার্জন করেন। আগামী বছরের ইন্টার্নশিপের জন্য এখনই প্রচুর আবেদনপত্র জমা পড়ে গেছে। তবে আদতে কতজন চাকরিতে শেষ পর্যন্ত টিকে থেকে অর্থ উপার্জন করতে পারেন, সেটাই দেখার।