জিনগত রূপান্তরের সঙ্গে সঙ্গে পরিবর্তন হচ্ছে করোনার লক্ষণ ও সংক্রমণের ধরন। সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের এক গবেষণায় দেখা গেছে কোভিড-১৯-এর প্রচলিত লক্ষণের বাইরে অনেকের দেহেই বেশ কিছু পরিবর্তন দেখা গেছে। পরীক্ষার পর তাদের সবারই কোভিড পজিটিভ আসে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম স্কাই নিউজের খবরে এসব তথ্য জানানো হয়।

গবেষণায় দেখা গেছে পূর্ণবয়স্কদের পাশাপাশি পাঁচ থেকে সতেরো বছর বয়সীরা করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর শুধু মাথাব্যথায় ভুগেছেন। এছাড়া সাম্প্রতিক সময়ে করোনায় আক্রান্ত প্রাপ্তবয়স্করা খাবারের স্বাদ না পাওয়া, জ্বর ছাড়াও শরীরে কাঁপুনি ওঠা এবং ঘন ঘন পেশিতে টান অনুভব করেছেন। পেশিতে টান পড়ার লক্ষণ সবচেয়ে বেশি দেখা গেছে ১৮ থেকে ৫৪ বছর বয়সীদের মধ্যে।

গত বছরের জুন থেকে এ বছরের জানুয়ারি মাস পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত প্রায় ১০ লাখ মানুষের ওপর পরীক্ষা চালিয়ে এসব লক্ষণ নির্ধারণ করতে সক্ষম হয়েছে লন্ডনের ইম্পেরিয়াল কলেজ। যদিও পরীক্ষায় করোনা ধরা পড়ার আগে এদের ৬০ ভাগই কোনো উপসর্গ অনুভব করতে পারেননি।

এদিকে অনেকের দেহে করোনার সাধারণ লক্ষণ হিসেবে জ্বর, শুকনো কাশি ও ঘ্রাণশক্তি বা খাবারের স্বাদ হারিয়ে ফেলার মতো উপসর্গও দেখা দিয়েছে। তবে জরীপে অংশ নেওয়া সব বয়সী মানুষই করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর জ্বর আসার কারণে বা জ্বর ছাড়াই শরীরে কাঁপুনি ওঠার কথা জানিয়েছেন।

অন্যদিকে ১৭ বছরের নিচে আক্রান্তদের বেশির ভাগই কোনো লক্ষণ অনুভব করেননি। ঠান্ডা জ্বর বা সামান্য কাশি ছিল বলেও জানিয়েছেন কেউ কেউ।

এমন অবস্থায় করোনার সাধারণ উপসর্গের সঙ্গে এসব নতুন লক্ষণের যেকোন একটি দেখা গেলেই জনগণকে কোভিড পরীক্ষার পরামর্শ দিয়েছেন গবেষকরা।