ইউরোপের শীর্ষ মানবাধিকার সংস্থা ‘কাউন্সিল অব ইউরোপ’ থেকে বের হয়ে গেছে রাশিয়া। এ তথ্য জানিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

এক বিবৃতিতে রুশ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও ন্যাটো দেশগুলো ‘রাশিয়ার প্রতি বন্ধুভাবাপন্ন নয়’। ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন ও ন্যাটো দেশগুলোর বিরুদ্ধে তারা এমনও অভিযোগ তুলেছে যে তারা কাউন্সিলে তাদের সংখ্যাগরিষ্ঠতার সুযোগ নিচ্ছে।

রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দাবি করেছে যে এই রাষ্ট্রগুলো ‘কাউন্সিল অব ইউরোপ ধ্বংস করার উদ্দেশ্যে এবং ইউরোপের সাধারণ মানবাধিকার ও আইনি পরিস্থিতি ধ্বংস করতে তাদের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে’।

ইউরোপের সবচেয়ে পুরনো রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান কাউন্সিল অব ইউরোপ, যারা মহাদেশে মানবাধিকার, গণতন্ত্র ও আইনের শাসন বজায় রাখার উদ্দেশে কাজ করে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ১৯৪৯ সালে এই সংস্থার প্রতিষ্ঠা হয়।

পশ্চিমা দেশগুলো তাদের নিজেদের জনগণকে ধোঁকা দিচ্ছে : প্রেসিডেন্ট পুতিন

রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছেন, রাশিয়ার বিরুদ্ধে পশ্চিমা দেশগুলো যেসব নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে তা বৈধ নয়।

টেলিভিশনে প্রচারিত এক ভিডিও কনফারেন্সে তিনি বলেন, পশ্চিমা দেশগুলো তাদের নিজেদের জনগণকে ধোঁকা দিচ্ছে এবং রাশিয়া শান্তভাবে তার নিজের সমস্যার সমাধান করবে।

পুতিন বলেন, রুশ তেল আমদানির ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও তার সরকার বৈশ্বিক জ্বালানি সরবরাহের ক্ষেত্রে তাদের বাধ্যবাধকতা মেনে চলবে।

সূত্র : বিবিসি