নিজস্ব প্রতিবেদক : রামু উপজেলার খুনিয়াপালংয়ে স্ত্রী শাহেদা বেগমের সঙ্গে এক যুবকের পরকীয়ায় বাঁধা দিতে গিয়ে বেধরক মারধরের শিকার হয়েছে স্বামী বেলাল উদ্দিন। পরকিয়ায় জড়িয়ে পড়া ওই যুবকসহ স্বজনরা তাকে মারধর করে নগদ অর্থ ও গুরুত্বপুর্ণ কাগজ নিয়ে পালিয়ে যায়।

শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) খুনিয়াপালংয়ের ধোয়াপালং এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত বেলাল উদ্দিন ধোয়াপালংয়ের আব্দুল করিমের ছেলে ও এলাকার স্বনামধর্ণ ব্যবসায়ী।

আহত বেলাল জানায়, শুক্রবার রাতে অপরিচিত এক যুবক স্ত্রী শাহেদা বেগমের সঙ্গে দেখা করতে আসে। এক পর্যায়ে তারা অসমাজিক কাজে লিপ্ত হতে দেখে বাঁধা দিলে ওই যুবক ও স্ত্রী মৃত জাফর আলমের মেয়ে শাহেদা বেগম তার বোন মরিয়ম খাতুন, তার ভাই আয়ুব আলী প্রকাশ বাপ্পীসহ মিলে তাকে বেধরক মারধর করে সঙ্গে থাকা ব্যবসার ৮৪ হাজার টাকা নিয়ে নেয়।

রাতে খবর পেয়ে গুরুতর আহত ও অজ্ঞান অবস্থায় বেলালকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে খুনিয়াপালং ইউপির চেয়ারম্যান আব্দুল মাবুদ ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুল গফুর।

চেয়ারম্যান আব্দুল মাবুদ বলেন, বেলাল উদ্দিন এলাকার পরিচিত ব্যবসায়ী। তার স্ত্রীর একাধিক পরকিয়ার কথা সে আগেও জানিয়েছিল। এবার সে নিজে হাতেনাতে ধরে ফেলায় তার উপর এ নির্যাতন চালানো হয়েছে।

এঘটনায় রামু থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলেও জানান আহত বেলাল উদ্দিন।