চট্টগ্রাম থেকে অপহৃত এক শিশুকে দুই দিন পর টেকনাফ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের পাহাড়ি এলাকার একটা ঘর থেকে চার বছর বয়েসী এ শিশুটিকে উদ্ধার করে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ থানা পুলিশ।

পাঁচলাইশ থানার ওসি আবুল কাশেম ভূঁইয়া গণমাধ্যমকে জানান, এ শিশুকে মোসারিকুল হাসান ওরফে রিফাত নামে এক যুবক শুক্রবার সকালে নগরীর হিলভিউ এলাকা থেকে চকলেট কিনে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে চুরি করে টেকনাফ নিয়ে যায়।

“টেকনাফের হ্নীলায় পাহাড়ি এলাকার শিশুটিকে একটি বাড়িতে আটকে রেখে তার মা লাকি আক্তারকে ফোন করে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে রিফাত।”

এ ঘটনায় শনিবার লাকী আক্তার পাঁচলাইশ থানায় একটি মামলা করেন। মামলার পর থানা পুলিশের একটি দল তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে শিশুটির অবস্থান হ্নীলায় নিশ্চিত করে। এরপর স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও টেকনাফ থানা পুলিশের সহায়তায় শিশুটিকে উদ্ধার করেন।

ওসি কাশেম বলেন, “রিফাতের বাড়িও টেকনাফের হ্নীলায়। সে শিশুটিকে এক বয়স্ক নারীর কাছে রেখে পরিবার নিয়ে সটকে পড়ে। তাকে ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে।”

রিফাত টেকনাফ থানার একটি মাদক মামলার আসামি বলে জানান ওসি।

লাকীর বরাত দিয়ে ওসি আবুল কাশেম বলেন, লাকীর স্বামী হাটহাজারি থানার একটি মামলায় কারাগারে আছেন। রিফাত শুক্রবার লাকীকে তার স্বামীর বন্ধু পরিচয়ে ফোন দিয়ে হিলভিউতে তার বাসায় আসেন। বাসায় এসে রিফাত শিশুটিকে চুরি করে নিয়ে যান।

উদ্ধারের পর আদালতের মাধ্যমে শিশুটিকে বিকালে তার মার কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান ওসি কাশেম ভূঁইয়া।