কক্সবাজারের টেকনাফ সদরের দক্ষিণ লেংগুরবিল এলাকায় শাহিনুর আক্তার (২০) নামে এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় টেকনাফ সদর ইউনিয়ন দক্ষিণ লেংগুরবিল এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

নিহত গৃহবধূ উপজেলার সদর ইউনিয়নের দক্ষিণ লেংগুরবিল গ্রামের মো. উল্লাহ’র ছেলে ছৈয়দ আহমদের স্ত্রী। নিহতের স্বজনদের দাবি, তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন তাকে হত্যা করেছে।

জানা যায়, নিহত শাহিনুর আক্তারের সঙ্গে তিন বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় ছৈয়দ আহমদের। তাদের একটি শিশু সন্তান রয়েছে। নিহতের ভাই ফারুক জানান, শ্বশুর বাড়ি থেকে হঠাৎ ফোন করে বলে শাহিনুর অজ্ঞান হয়েছে গেছে। এই খবর শুনে আমরা এসে দেখি বাড়িতে কেউ নেই, দরজা ধাক্কা দিয়ে রুমে ঢুকলে খাটের উপর শাহিনুরের মরদেহ এবং তার গলায় রশির চিহ্ন দেখা যায়।

নিহত শাহিনুরের মা জানান, আমার মেয়েকে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন হত্যা করেছে, আমি আমার মেয়ের হত্যার বিচার চাই।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, তারা নিহত শাহিনুরের ঝুলন্ত লাশ তার শাশুড়ি দা দিয়ে রশি কেটে নামাতে দেখছেন। এমনকি নিহত শাহিনুরকে তার শাশুড়ি দীর্ঘদিন ধরে নির্যাতন করে আসছে।

খবর পেয়ে টেকনাফ মডেল থানার এসআই সজীবের নেতৃত্বে একদল পুলিশ শাহিনুরে মৃতদেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহতের লাশ উদ্ধার পর ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনাটি তদন্ত পূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।