কক্সবাজারের টেকনাফের বাহাছড়ায় এক বিয়ে বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় বাড়ির সকলকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে নববধূ ও বিয়ে বাড়িতে আসা অতিথিদের স্বর্ণালংকার, টাকা, মোবাইল ফোন লুট করে নিয়ে যায় মুখোশধারী ডাকাতের সদস্যরা।

সোমবার ভোররাতে উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের উত্তর শীলখালী পাহাড়ি এলাকার খলিলুর রহমানের বাড়িতে এ ডাকাতির ঘটনা ঘটে।
ডাকাতদের মারধরে খলিলুর রহমানের ছেলেসহ চারজন আহত হয়েছেন।

তবে তাৎক্ষণিকভাবে তাঁদের নাম জানা যায়নি।
বাহারছড়া ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন খোকন এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ, ওই পরিবারের সদস্য ও স্থানীয়রা জানান, বাহারছড়ার উত্তর শীলখালী নতুন বাজার এলাকার বাসিন্দা মোহাম্মদ হোসেনের মেয়ে সাদেকা ইয়াসমিনের সাথে একই এলাকার খলিলুর রহমানের ছেলে রহমত উল্লাহর বিবাহ হয়। এ উপলক্ষে রবিবার আয়োজিত অনুষ্ঠানে খলিলুর রহমানের বাড়িতে দূরদূরান্ত থেকে নিকটাত্মীয়রা অংশ নেন।

আয়োজনে অনেক রাত হওয়ায় অনেক অতিথি নিজ বাড়িতে ফিরে যেতে না পেরে ওই বাড়িতে রাত যাপন করেন। রাত ৩ টার দিকে বাড়িতে হানা দেয় মুখোশধারী ডাকাত দল। এ সময় অস্ত্রের মুখে বাড়িতে থাকা লোকজনকে জিম্মি করে লুটপাট চালায় দলটি।
ডাকাত দলের মারধরে চারজন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন খলিলুর রহমানের ছেলে আবদুর রহমান।

তিনি জানান, ‘সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের কয়েকজন সদস্য বাড়ির প্রধান দরজা ধাক্কাতে থাকেন। এ সময় আমি প্রতিহত করার চেষ্টা করি। পরে খুন্তি দিয়ে দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে আমাদের কয়েকজনকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে মারধর করেন তাঁরা।
এ সময় আমার মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে আলমারি থেকে স্বর্ণালংকার, মোবাইল ফোন ও টাকা লুটপাট করে নিয়ে যান। ’
এ ব্যাপারে টেকনাফ বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পরিদর্শক নুর মোহাম্মদ জানান, ‘খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম।

এ ঘটনার বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।