টেকনাফে নুরুল হক ভুট্টোকে হত্যার ঘটনায় দুই এলাকাবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি শান্ত করতে পুলিশ ও বিজিবির যৌথ টহল জোরদার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৭ মে) বেলা ১২টার দিকে নিহত ইয়াবা কারবারি নুরুল হক ভুট্টোর লোকজন দা, কিরিচ নিয়ে মৌলভীপাড়ার কয়েকটি ঘরবাড়িতে ভাংচুর চালায়। এসময় জাফর আলম (৫৫) নামে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে জখম করা হয়। তিনি ভুট্টোর ওপর হামলাকারী শীর্ষ মাদক কারবারি একরামুল হক ও তার ভাই আবদুর রহমানের চাচা।

আহত জাফর আলমকে উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসা দিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. মাজাহারুল হক।

খবর পেয়ে টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. কায়সার খসরুসহ টেকনাফ-২ (বিজিবি) ব্যাটালিয়নের অপারেশন অফিসার লে. এম মুহতাসিম বিল্লাহ শাকিল ও টেকনাফ মডেল থানার ওসি হাফিজুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ৷

উল্লেখ্য, রোববার (১৫ মে) বিকেলে মৌলভীপাড়া এলাকায় মোটরসাইকেল থেকে নামিয়ে কুপিয়ে ডান পা বিচ্ছিন্ন করার পর মারা যান নুরুল হক ভুট্টো। তিনি টেকনাফের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন। তার বিরুদ্ধে সাংবাদিকের ওপর হামলা, অস্ত্র ও মাদক ব্যবসাসহ নানা অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে। উভয়পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা ও এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে।

এদিকে নুরুল হক ভুট্টো কুপিয়ে হত্যার ঘটনায়  তার ভাই নুরুল ইসলাম বাদী হয়ে ১৭ জনকে এজাহারভুক্ত করে থানায় মামলা করেন।