জাপানের উপহার দেয়া করোনাভাইরাস প্রতিরোধী অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার আরেকটি চালান বাংলাদেশের পথে রয়েছে। এই চালানে ছয় লাখ ১৬ হাজার ৭৮০ ডোজ টিকা রয়েছে।

সোমবার (২ আগস্ট) বাংলাদেশে টোকিও দূতাবাসের ফেসবুক পেজ থেকে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, জাপানের স্থানীয় সময় রাত ৯টা ১৫ মিনিটে টিকা বহনকারী নিপ্পন এয়ারওয়েজের একটি কার্গো ফ্লাইট ঢাকার উদ্দেশে নারিতা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে রওনা হয়েছে।

দূতাবাস জানায়, বাংলাদেশকে জাপানের দেয়া উপহারের টিকার তৃতীয় চালান ঢাকায় আসছে। মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) টিকাগুলো ঢাকায় পৌঁছাবে। টোকিওর বাংলাদেশ দূতাবাসের ইকোনোমিক মিনিস্টার মো. সৈয়দ নাসির এরশাদ এ সময় বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে শনিবার (৩১ জুলাই) জাপানের উপহারের টিকার দ্বিতীয় চালান হিসেবে সাত লাখ ৮১ হাজার ৩২০ ডোজ ঢাকায় আসে এবং গত ২৪ জুলাই আসে দুই লাখ ৪৫ হাজার ২০০ ডোজ টিকার প্রথম চালান।

এনিয়ে এখন পর্যন্ত জাপান থেকে ১০ লাখ ২৬ হাজার ৫২০ ডোজ টিকা দেশে এসেছে। জাপান থেকে বাংলাদেশ মোট ৩০ লাখ ডোজ টিকা উপহার হিসেবে পাবে।

সম্প্রতি জাপানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী তোশিমিৎসু মোতেগি কোভ্যাক্সের আওতায় ১৫টি দেশের জন্য অ্যাস্ট্রাজেনেকার এক কোটি ১০ লাখ ডোজ টিকা উপহারের ঘোষণা দেন। সে ঘোষণা অনুযায়ী বাংলাদেশও এই টিকা পাচ্ছে।

এদিকে সোমবার (২য় আগস্ট) থেকে রাজধানীর বিভিন্ন সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও স্বায়ত্তশাসিত হাসপাতালসহ বিভিন্ন টিকাদান কেন্দ্রে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার দ্বিতীয় ডোজ টিকা প্রদানের কার্যক্রম আবারও শুরু হয়েছে।

ভারতের সেরাম ইন্সটিটিউট থেকে প্রতিশ্রুত টিকা না পাওয়ায় থমকে গিয়েছিলো এই টিাকার দ্বিতীয় ডোজের  কার্যক্রম। জাপান থেকে কোভ্যাক্সের আওতায় ১০ লাখের বেশি টিকা পাওয়ায় আবারও দ্বিতীয় ডোজের কার্যক্রম শুরু হলো।