দীর্ঘদিন পর প্রকাশ্যে এসেছেন নানা বিতর্কিত মন্তব্য করে পদ হারানো সাবেক তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসান এমপি।

শনিবার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে ডা. মুরাদ হাসানের চাচা সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আমিনুর রহমান তালুকদারের জানাজা নামাজে অংশ নিতে নিজ গ্রাম সরিষাবাড়ির দৌলতপুরে যান তিনি।

সরিষাবাড়ির উপজেলার দৌলতপুর অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান তালুকদার কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত জানাজা নামাজে অংশ নেন ডা. মুরাদ হাসান এমপি।

জানাজা নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় তার চাচা মুক্তিযোদ্ধা আমিনুর রহমান তালুকদারকে। এর আগে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গার্ড অব অনার প্রদান করা হয় এই বীর মুক্তিযোদ্ধাকে। জানাজায় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন ডা. মুরাদ হাসানের বড় ভাই বিচারপতি মাহমুদুল হাসান তালুকদার, সরিষাবাড়ি উপজেলার চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন পাঠানসহ আরও অনেকে। তবে উপজেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল কোনো নেতাকে দেখা যায়নি।

নানা বিষয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের কারণে ৭ ডিসেম্বর প্রতিমন্ত্রীর পদ ত্যাগ করতে বাধ্য হন ডা. মুরাদ হাসান। এরপর থেকে সকলের আড়ালে চলে যান তিনি। ৯ ডিসেম্বর কানাডার উদ্দেশ্যে দেশ ছাড়েন ডা. মুরাদ হাসান। কিন্তু কানাডায় ঢুকতে না পেরে ১২ ডিসেম্বর দেশে ফিরে আসেন তিনি। ৬ জানুয়ারি ৯৯৯ এ ফোন করে মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে নির্যাতন ও প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ করেন তার স্ত্রী জাহানারা এহসান। পরে এ ঘটনায় ধানমন্ডি থানায় জিডি করেন তিনি।