পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) এর দলীয় প্রেসিডেন্ট ও জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা শেহবাজ শরিফকে গ্রেফতার করেছে দেশটির ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টিবিলিটি ব্যুরো (এনএবি)।

অর্থপাচারের একটি মামলায় লাহোর হাইকোর্টে জামিন আবেদন নামঞ্জুর হওয়ার পরপরই সোমবার গ্রেফতার হন তিনি।

ডন অনলাইনের প্রতিবেদন অনুযায়ী, মামলার শুনানিতে অংশ নেয়ার পর আদালত চত্বর থেকে গ্রেফতারের পর দেশটির তিনবারের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ভাই শেহবাজ শরিফকে জেল হেফাজতে পাঠানো হয়েছে। মামলার শুনানির আগে আদালত চত্বরে পিএমএল-এন এর বহু কর্মী-সমর্থক জড়ো হয়েছিলেন।

গত সপ্তাহে লাহোর হাইকোর্ট শেহবাজের গ্রেফতার-পূর্ববর্তী জামিনের মেয়াদ বৃদ্ধি করেছিল।

পিএমএল–এন ভাইস প্রেসিডেন্ট ও নওয়াজ শরিফের মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ এ গ্রেফতারে তীব্র প্রতিক্রিয়া জানিয়ে এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, ‘দেশে জবাবদিহি ও ন্যায়বিচার থাকলে শেহবাজ শরিফ গ্রেফতার হতেন না।’

নওয়াজকন্যা মরিয়ম আরও লিখেছেন, ‘কোনও ভুল করবেন না। শেহবাজ শরিফকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কারণ যারা তাকে তার ভাইয়ের বিরুদ্ধে ব্যবহার করতে চেয়েছিলেন তাদের প্রস্তাব তিনি প্রত্যাখ্যা করেছেন। ভাইয়ের বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর চেয়ে কারাবন্দি হওয়াটাকেই বেঁছে নিয়েছেন তিনি।’

পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) চেয়ারপারসন বিলওয়াল ভুট্টো জারদারি এক বিবৃতিতে শেহবাজের গ্রেফতারের ঘটনার নিন্দা জানিয়ে দ্রুত তার মুক্তি দাবি করেন।

গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি রয়েছে নওয়াজ শরিফের বিরুদ্ধেও। চিকিৎসার জন্য জামিন নিয়ে প্রায় ১০ মাস ধরে লন্ডনে অবস্থান করছেন তিনি।