বিশ্বের সাড়ে ৪২ কোটি মানুষ ডায়াবেটিস রোগে আক্রান্ত। ২০৪৫ সালের মধ্যে এ সংখ্যা ৬৩ কোটি ছাড়াতে পারে বলে আশঙ্কা করছে আন্তর্জাতিক ডায়াবেটিস ফেডারেশন। ডায়াবেটিস হলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে। এর ফলে অন্যান্য রোগে আক্রান্ত হওয়ারও ঝুঁকি বেড়ে যায়।

নিয়ন্ত্রিত জীবন-যাপনের মাধ্যমে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ এমনকি নির্মূল করাও সম্ভব। এজন্য খাদ্যতালিকা ও শরীরচর্চার প্রতি নজর দিতে হবে। বিশেষ করে ডায়াবেটিস রোগীর সকালের নাস্তা কেমন হওয়া উচিত ও কোন খাবার খাওয়া যাবে না সে সম্পর্কে জানতে হবে। কারণ সারাদিনের মধ্যে সকালের নাস্তা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। কয়েকটি খাবার রয়েছে যেগুলো খেলে ডায়াবেটিস রোগীর রক্তের সুগার নিয়ন্ত্রণে থাকে। জেনে নিন সকালে ডায়াবেটিস রোগী কী খাবেন-

সাদা পাউরুটি খাওয়ার অভ্যাস থাকলে বাদ দিতে হবে। এর বদলে ব্রাউন বা হোলগ্রেইন পাউরুটি খেতে পারেন। এতে ভালো কার্বোহাইড্রেট রয়েছে। কোনো পরিশোধিত চিনি এর সঙ্গে মেশানো থাকে না। এতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার রয়েছে। যা দীর্ঘক্ষণ পেট ভরিয়ে রাখবে। সেইসঙ্গে রক্তের সুগার লেভেলও কমিয়ে দেয়।

বিদেশি ফল হলেও অ্যাভোকাডো এখন ফলের দোকানগুলোতে পাওয়া যায়। এ ফল একটি করে হলেও প্রতিদিনের নাস্তায় রাখতে পারেন। এতে প্রচুর পরিমাণে পুষ্টিগুণ রয়েছে।

ফাইবারজাতীয় খাবারের মধ্যে ওটস বা ডালিয়া রাখতে পারেন। এগুলো সবজি দিয়ে খিচুরির মতো রান্না করে খেতে পারেন।

অবশ্যই মিষ্টিজাতীয় ফল বা খাবার থেকে ডায়াবেটিস রোগীকে দূরে রাখতে হবে। চিনিমুক্ত খাবার খেয়ে ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারলেই ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করা সম্ভব।

যেসব খাবার থেকে ডায়াবেটিস রোগীরা দূরে থাকবেন-

চিনিযুক্ত চা, কফি, ফলের রস, ফলের স্মুদি, ময়দা দিয়ে তৈরি খাবার, কোমল পানীয়, চকলেট, জ্যাম-জেলি, ভাজা-পোড়া খাবার, কেক, প্যানকেকসহ যাবতীয় ক্ষতিকর খাবার থেকে দূরে থাকতে হবে।