কোদালের হাতলের ভিতর এবার পাওয়া গেল ১ হাজার ৬০০ পিস ইয়াবা বড়ি। অভিনব কায়দায় এভাবে ইয়াবা পাচার করে নিয়ে যাচ্ছিলেন মান্টু মিয়া (৫৫) নামের এক ব্যক্তি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশ তাকে হাতেনাতে আটক করেছে।

রবিবার বেলা ১১টার দিকে রাজশাহী শিরোইল বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়।

বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন, উপপরিদর্শক (এসআই) মোস্তাফিজার রহমান, এটিএসআই নাসির উদ্দিন ও এএসআই সিরাজুল ইসলাম এ অভিযান চালান।

কোদালের হাতলের ভিতর এবার পাওয়া গেল ১ হাজার ৬০০ পিস ইয়াবা বড়ি। অভিনব কায়দায় এভাবে ইয়াবা পাচার করে নিয়ে যাচ্ছিলেন মান্টু মিয়া (৫৫) নামের এক ব্যক্তি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশ তাকে হাতেনাতে আটক করেছে।

বোয়ালিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নিবারন চন্দ্র বর্মন, উপপরিদর্শক (এসআই) মোস্তাফিজার রহমান, এটিএসআই নাসির উদ্দিন ও এএসআই সিরাজুল ইসলাম এ অভিযান চালান।

ওসি নিবারন চন্দ্র বর্মন জানান, মান্টু মিয়ার বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার বিশ্বনাথপুর মুন্সিটোলা গ্রামে। তার বাবার নাম মৃত সাজেমান আলী। মান্টু একজন মাদক পাচারকারী।

দিনমজুরের বেশে কোদালের বাঁশের হাতলের ভিতর অভিনব কায়দায় তিনি চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে ইয়াবা নিয়ে ঢাকা যাচ্ছিলেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

ওসি জানান, বাংলাদেশে যে কয়েক ধরনের ইয়াবা পাওয়া যায় তার মধ্যে সবচেয়ে দামি মান্টুর কাছে পাওয়া ইয়াবাগুলো। এগুলোর আনুমানিক দাম চার লাখ ৮০ হাজার টাকা। এই ইয়াবা মান্টু কোথায় পেয়েছেন এবং কার কাছে নিয়ে যাচ্ছিলেন সে বিষয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

তার বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। মামলা দায়েরের পর তাকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।