কক্সবাজার সদর উপজেলা পোকখালী টু জালালাবাদ চলাচলের সেতুটি ভারী বর্ষনে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের পানিতে ভেঁঙ্গে যায়। ভেঁঙ্গে যাওয়া ব্রীজটি পরিদর্শন করেন সদরের নতুন নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মিল্টন রায়।

১ জুলাই বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টায় তিনি ব্রীজটি পরিদর্শনে আসেন। এসময় দুই ইউনিয়নের মানুষ চলাচলের জন্য একটি ঝুলন্ত ব্রীজের ব্যবস্থা করা হবে বলে আশ্বাস দেন ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন পোকখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিক আহমদ ও জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমরুল হাসান রাশেদ, সিভিল ইঞ্জিনিয়ার হেলাল উদ্দিন, পোকখালী ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নং ওয়ার্ড এর মেম্বার শাহাজান, পোকখালী মুসলিম বাজারের সভাপতি শামসুল আলম ও ছাত্রলীগ পোকখালী ইউনিয়ন শাখার সাধারণ সম্পাদক মোঃ হাসানসহ এলাকার সচেতন মহল উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য ৩০ জুন বুধবার থেকে ভারী বৃষ্টি হওয়াতে, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলের পানির চাপে ১লা জুলাই ভোরে ব্রীজ ভেঙে যায়, ফলে ২ ইউনিয়নের ১০-১৫ হাজারের অধিক জনগণের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। দুই ইউনিয়নের জনসাধারণের অভিযোগ ব্রীজটি টেকসই না হওয়ার কারণে পাহাড়ী ঢলে ভেঙ্গে গেছে। শুধু টেকসই নয় তারা আরো অভিযোগট ভেসে গেলো ব্রীজ টি। যত দ্রুত সম্ভব দুই পাড়ের মানুষের চলাচলের সংযোগ সেতু টি পূনঃ নির্মান করা সময়ের দাবী।