শিক্ষার্থীর মোবাইল কেড়ে নেওয়ার অভিযোগে চট্টগ্রাম কলেজে সংঘর্ষে জড়িয়েছে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপ। এতে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল করিম গ্রুপের হাতে সুভাষ মল্লিক সবুজ গ্রুপের তিনজন আহত হয়েছে বলে দাবি করেছেন সাধারণ সম্পাদক সুভাষ মল্লিক।

কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সুভাষ মল্লিক সবুজ পূর্বকোণকে বলেন, ‘মাহমুদুল করিম গ্রুপের রাজু ও মোস্তফা শিবিরের কার্যক্রমের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ এনে একাদশ শ্রেণির ছাত্র সালমান সাহেদের মোবাইল কেড়ে নেয়। পরে মোবাইলটি ফেরত না দিলে আহতরা প্রতিবাদ করে। তারা বলে শিবিরের কার্যক্রমের সাথে জড়িত থাকলে তাকে তোমরা পুলিশের হাতে তুলে দাও। মোবাইল কেড়ে নেয়ার দরকার কি? এটা বলাতে তাদের মেরেছে।’

তবে কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল করিম বিষয়টি অস্বীকার পূর্বকোণকে বলেন, ‘আমার গ্রুপের ছেলেরা কিছু ছেলেদের শিবিরের কার্যক্রমের সাথে জড়িত থাকার সত্যতা পেয়েছে। যার মোবাইলটি নেয়া হয়েছে সেটা চকবাজার থানায় জমা দেওয়া হয়েছে। পুলিশ অভিযোগে সত্যতা যাচাই করে দেখছে। ছেলেগুলোকে কলেজ ক্যাম্পাস থেকে বের করতে চাইলে সুভাষের ছেলেরা বাধা দেয়। তাতে কিছুটা হাতাহাতি হয়েছে। পরে পুলিশ এসে বিষয়টি মধ্যস্থতা করে। তিনজন আহত হওয়ার ঘটনা মিথ্যা বলেও জানান তিনি।

চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ফেরদৌস জাহান বলেন, বিষয়টি অত বড় ঘটনা না। একটি ছেলের মোবাইলে ফেসবুক পোস্টের সূত্র ধরে দুই গ্রুপে মুখোমুখি হয়েছিল। আমরা দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করি। সেই সাথে একটি মোবাইল জব্দ করে যাচাই-বাছাই করার জন্য থানায় এনেছি। দ্রুত উপস্থিত হওয়াতে বড় কোনো ঘটনা ঘটেনি।