করোনা প্রতিরোধ করতে পারে এমন একটি জীবাণুনাশক স্প্রে আবিষ্কার করেছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ বিজ্ঞানী সাদিয়া খানম। ২৬ বছর বয়সী সাদিয়া দেড় বছর ধরে গবেষণার পর ভলটিক নামের এই জীবাণুনাশক তৈরি করেছেন।

এটি যে কোনো বস্তুর উপরিভাগে স্প্রে করা হলে সেটি দু’সপ্তাহের জন্য জীবাণুমুক্ত থাকবে। ব্রিটেনের জাতীয় স্বাস্থ্য সেবা ব্যবস্থা এনএইচএসসহ বিভিন্ন কর্তৃপক্ষ পরীক্ষা নিরীক্ষার পর এটিকে অনুমোদন দিয়েছে।

এমনকি, মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার পরীক্ষাগারেও তার এই স্প্রে ব্যবহার করা হচ্ছে।

কোভিড মহামারি মোকাবেলায় এই উদ্ভাবনকে বড় ধরনের আবিষ্কার হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে। ব্রিটেনে করোনাভাইরাসের প্রকোপ দেখা দিলে ইংল্যান্ডের চেশায়ারে প্রাথমিক গবেষণা শুরু করেন সাদিয়া।

করোনা ভাইরাসকে ধ্বংস করেতে একটি কার্যকরী সমীকরণ উদ্ভাবন করতে সক্ষম হন তিনি। বিশেষ একটি মেশিন দিয়ে এই তরল স্প্রে করতে হয়। এই পুরো প্রক্রিয়াটির নাম ভলটিক।

আলঝাইমার নিয়ে পিএইচডি করার কথা থাকলেও করোনা মহামারির কারণে সাদিয়ার সে পরিকল্পনা ভেস্তে যায়। লকডাউনের দিনগুলোতে বাবা-মার রেস্তোরাঁ ‘ক্যাফে ইন্ডিয়া’তে কাজ করার সময় এই স্প্রে নিয়ে গবেষণা শুরু করেন তিনি।

এরইমধ্যে ভলটিক উৎপাদনের জন্য ১৩টি দেশ থেকে ১০ মিলিয়ন পাউন্ডের অর্ডার পেয়েছেন সাদিয়া।

সূত্র: একাত্তর টিভি