বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদে সম্প্রসারিত বিট পুলিশিং কার্যালয় উদ্বোধন ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪ টায় বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদের হলরুমে নাইক্ষ্যংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার লামা সার্কেল মোঃ রেজওয়ানুল ইসলাম।

বিট ইনচার্জ এস আই সজীব বড়ুয়া ও সহকারী বিট ইনচার্জ সজল বড়ুয়ার পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন নাইক্ষ্যংছড়ি থানা অফিসার ইনচার্জ মোঃ আলমগীর হোসেন,ওসি তদন্ত বিল্লাল সিকদার,
বাইশারী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোঃ এনামুল হক ভুইয়া, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মংলা ওয়াই মার্মা, বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আলম কোম্পানি, বাইশারী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ জাহাঙ্গীর আলম বাহাদুর,নাইক্ষ্যংছড়ি প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি আবদুল হামিদ, সাংবাদিক আবদুর রশিদ, এস আই নুরুল ইসলাম প্রমুখ।

এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন ইউপি সদস্য সাবেকুন্নাহার, মো.আবু তাহের,আবুল হোসেন,আবদুর রহিম,আনোয়ার সাদেক, নুরুল আজিম,থোয়াইচালা চাক, ফজুলুল হক তারেক প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে রেজওয়ানুল ইসলাম বলেন, পুলিশ হলো জনগণের বন্ধু। আমরা আপনাদের যে কোনো সমস্যার জন্য সবসময় আপনাদের পাশে থাকতে চাই।

মাদকের বিরুদ্ধে সরকার জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছে। আমরা সে আলোকেই কাজ করে যাচ্ছি। আমরা মানবিক পুলিশ হতে চাই। আপনাদের এলাকায় মাদক,বাল্য বিবাহ,ইভটিজিং, জুয়াসহ যে কোনো অপরাধ সংঘটিত হলে আমাদেরকে অবগত করে সহযোগিতা করুন।

বিট পুলিশিংয়ের মূল ধারণা হচ্ছে, পুলিশ কর্মকর্তারাই সেবা নিয়ে যাবেন মানুষের কাছে। তবে মামলাসহ কিছু আইনগত বিষয়ে থানায় যেতে হবে।

বর্তমান করোনার পরিস্থিতিতে চরম বিপদে না পড়লে মানুষ থানামুখী হওয়ার সম্ভাবনা কম। এ অবস্থায় বিট পুলিশিং চালুর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বর্তমান আইজিপি মহোদয়।

সভাপতির বক্তব্যে ওসি আলমগীর হোসেন বলেন থানায় কোনও দালালের সুযোগ নেই। সাধারণ মানুষের জন্য পুলিশের দরজা সবসময় উন্মুক্ত থাকবে। সর্বোচ্চ আন্তরিকতা ও সততার সঙ্গে কাজ করবে পুলিশ।