টাঙ্গাইলের সখীপুরে ১ হাজার ২০০ ইয়াবা বড়িসহ রফিকুল ইসলাম (৪৫) নামের এক আওয়ামী লীগ নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তাঁর সঙ্গে গ্রেপ্তার হয়েছেন আরও তিনজন।

সোমবার বিকেলে উপজেলার বাঘবেড় এলাকা থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার রফিকুল ইসলাম উপজেলার মুচারিয়া পাথার গ্রামের আবদুল বাছেদের ছেলে। রফিকুল ইসলাম উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক। এর আগে তিনি ওই ওয়ার্ডের যুবলীগের সভাপতি ছিলেন। তাঁর বাবা আবদুল বাছেদ গজারিয়া ইউনিয়ন বিএনপির বর্তমান সভাপতি।

তাঁর সঙ্গে গ্রেপ্তার অন্যরা হলেন ময়মনসিংহ জেলার ভালুকা উপজেলার বাটাজোর গ্রামের আলী আকবর (২৮), উপজেলার বাঘবেড় গ্রামের মৃত ইদ্রিস আলীর মেয়ে ইতি আক্তার (২৪) ও একই গ্রামের শফিকুলের মেয়ে জেসমিন আক্তার (২৮)।

এ ঘটনায় সখীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে আজ রাতে সখীপুর থানায় চারজনকে আসামি করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন।

পুলিশ জানায়, আওয়ামী লীগ নেতা রফিকুল ইসলাম তিন দিন আগে ওই তিনজনকে সঙ্গে নিয়ে কক্সবাজারের টেকনাফে যান। সোমবার সকালে ইয়াবার বড় একটি চালান নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে গোপন সংবাদ পেয়ে পুলিশ উপজেলার বাঘবেড় এলাকা থেকে তাঁদের গ্রেপ্তার করে। পরে তাঁদের দেহ তল্লাশি করে ১ হাজার ২০০ ইয়াবা জব্দ করে পুলিশ।

উপজেলার গজারিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আমিন গ্রেপ্তার রফিকুলের রাজনৈতিক পরিচয়ের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

সখীপুর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মো. আবদুল মতিন আজ রাতে প্রথম আলোকে বলেন, চারজনকে আসামি করে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা হয়েছে। আসামিদের মঙ্গলবার সকালে টাঙ্গাইল আদালতে পাঠানো হবে।