লকডাউন, মাস্ক পরা এবং করোনা প্রতিরোধি বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞার বিরোধিতা করে পৃথিবীর কয়েকটি শহরে বিক্ষোভ করছে হাজার হাজার মানুষ। অস্ট্রেলিয়ার সিডনি, মেলবোর্ন, ফ্রান্সের প্যারিস এবং ইতালির রোম, নেপলস ও তুরিনে অসংখ্য মানুষকে মিছিল করে স্লোগান দিতে দেখা গেছে।

শনিবার (২৪ জুলাই) অস্ট্রেলিয়ার দুই বড় শহর সিডনি ও মেলবোর্নে লকডাউনের বিরোধিতা করে বিক্ষোভ করেন কয়েক হাজার মানুষ। শহরের মধ্য দিয়ে মিছিল করার সময় বিক্ষোভকারীরা ‘স্বাধীনতা’ ‘স্বাধীনতা’ বলে স্লোগান দেন। পুলিশ জানিয়েছে, এসময় মেলবোর্ন থেকে তারা ৫৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।

অতি সংক্রামক ডেল্টা ধরনের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় দেশের বিভিন্ন জায়গায় লকডাউন জারি করেছে অস্ট্রেলিয়ার সরকার। সীমান্তে নিষেধাজ্ঞা, বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন এবং সীমিত লকডাউন দিয়েও এখন আর সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না বলে জানিয়েছে তারা।

অস্ট্রেলিয়াতে বর্তমানে টিকা দেওয়ার হার মাত্র ১৪ শতাংশের মতো, যা উন্নত দেশগুলোর মধ্যে সবচেয়ে কম টিকাকরণের হার।

অন্যদিকে, ইউরোপের দেশ ফ্রান্সের বিভিন্ন শহরে প্রায় এক লাখ ষাট হাজার মানুষ ‘ভ্যকসিন পাস’ ও লকডাউনের বিরোধিতা করে রাস্তায় নেমেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

শনিবার (২৪ জুলাই) দেশটির সিনেটে ‘হেলথ পাস’ বা ‘ভ্যাকসিন পাস’ বিল নিয়ে বিতর্ক হয়। ইতোমধ্যে সংসদের নিম্নকক্ষে অনুমোদন পেয়েছে বিলটি। এই বিল পাশ হলে যারা টিকা নেয়নি তাদের জন্য রেস্তোরাঁ এবং পাবলিক জায়গায় চলাচল করা কঠিন হয়ে পড়বে।

বিক্ষোভকারীরা এই বিলের বিরোধিতা করে প্রেসিডেন্ট ইম্যানুয়েল ম্যাক্রোর কঠোর সমালোচনা করেছেন।

ইউরোপের আরেক দেশ ইতালিতেও ‘ভ্যাকসিন পাসের’ মতো ‘গ্রিন পাস’ অনুমোদন করার চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। সেখানেও এটি বিরোধিতার সম্মুখীন হয়েছে। এর সমালোচনা করে রোম, নেপলস ও তুরিনে মিছিল করেন ও স্লোগান দেন বিক্ষোভকারীরা।