বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়-বুয়েটের ২০২১-২০২২ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক শ্রেণিতে ভর্তির প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বুয়েট ক্যাম্পাসে দুই শিফটে সকাল ১০টা থেকে সকাল ১১টা এবং দ্বিতীয় শিফটে বিকাল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

বুয়েটে ভর্তির আবেদন করা শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে ১৭ হাজার ৩৪ শিক্ষার্থী প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ পেয়েছেন। প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষায় প্রথম শিফটে ৮ হাজার ৫১৭ এবং দ্বিতীয় শিফটে ৮ হাজার ৫১৭ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণের সুযোগ পায়।

১০০ নম্বরের এমসিকিউ টাইপ প্রশ্নের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় উপস্থিতির হার ছিল ৯৫ শতাংশের বেশি বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানানো হয়েছে। গতবারের নয় এবারও প্রাক-নির্বাচনী ও মূল (চূড়ান্ত) ভর্তি পরীক্ষা- দুই ধাপে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষা।

এদিকে, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পরীক্ষা হলসমূহ পরিদর্শন করেন অধ্যাপক ড. সত্য প্রসাদ মজুমদার, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুল জব্বারসহ সংশ্লিষ্টরা। পরে সাংবাদিকদের সাথে কথা বলেন বুয়েট উপাচার্য।

এসময় তিনি পরীক্ষার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন এবং আগামীতেও দুই ধাপে বুয়েট ভর্তি পরীক্ষার পরিচালনার কথা বলেন।

উল্লেখ্য, প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষার ফলাফলের মেধাক্রম অনুসারে প্রতি শিফটের প্রথম তিন হাজার করে মোট ছয় হাজার শিক্ষার্থীকে মূল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য নির্বাচিত করা হবে। পর্যাপ্ত আবেদন গ্রহণ সাপেক্ষে ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীভুক্ত ন্যূনতম ১২জন পরীক্ষার্থী মূল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন।

মূল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য শিক্ষার্থীদের তালিকা আগামী ১১ জুনের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।

আগামী ১৮ জুন মূল ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এবারের ভর্তি পরীক্ষায় পার্বত্য চট্টগ্রাম ও অন্যান্য এলাকার ক্ষুদ্র জাতি গোষ্ঠীভুক্ত প্রার্থীদের জন্য প্রকৌশল বিভাগসমূহ এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের জন্য মোট ৩টি ও স্থাপত্য বিভাগে ১টি সংরক্ষিত আসনসহ সর্বমোট আসন ১ হাজার ২৭৯টি।

মূল ভর্তি পরীক্ষা লিখিত আকারে ২ ঘণ্টাব্যাপী অনুষ্ঠিত হবে। এই পরীক্ষায় থাকবে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত মডিউল-এ ‘ক’ ও ‘খ’ গ্রুপের জন্য গণিত, পদার্থবিজ্ঞান ও রসায়ন এবং দুপুর ২টা থেকে বিকাল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত মডিউল-বি ‘খ’ গ্রুপের মুক্তহস্ত অঙ্কন এবং দৃষ্টিগত ও স্থানিক ধীশক্তি।