অবশেষে বিদেশি নাগরিকদের জন্যে সীমান্ত খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিলো ভারত। করোনা মহামারিতে বন্ধ হওয়ার প্রায় দেড় বছর পর সীমান্ত খোলার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে দেশটি। আগামী ১৫ অক্টোবর থেকে বিদেশি নাগরিকরা দেশটির ট্যুরিস্ট (পর্যটন) ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) এক বিবৃতিতে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

পর্যটন খাতের মাধ্যমে করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতির চাকা সচল করার লক্ষে ভারতের সরকার বিদেশি নাগরিকদের ভারত ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে। করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়ে আসায় নিষেধাজ্ঞায় শিথিলতা আনা হয়েছে বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে, শুরুতে শুধু মাত্র চ্যাটার্ড ফ্লাইটের যাত্রীদের ভিসা দেওয়া হবে। তবে ১৫ নভেম্বর থেকে সব বণিজ্যিক ফ্লাইটের যাত্রীরা ভিসা পাবেন।

এবিষয়ে ভারতের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রাণালয়ের পক্ষ থেকে বিবৃতিতে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ বিষয়ক স্বাস্থ্য সুরক্ষার সব ধরনের নির্দেশনা মেনেই প্রবেশ করতে পারবেন পর্যটকরা।

দেড় বছর ধরে বন্ধ থাকা ট্যুরিস্ট ভিসা চালুর বিষয়ে দেশটির কল্যাণবিষয়ক মন্ত্রণালয় বলেছে, ভারতের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, বেসামরিক বিমান চলাচল মন্ত্রণালয়, পর্যটন মন্ত্রণালয় এবং রাজ্য সরকারের মতো অংশীদারদের সঙ্গে আলোচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে আন্তর্জাতিক যাতায়াত আবার শুরু হওয়ার পর আবেদনকারী প্রথম পাঁচ লাখ বিদেশি পর্যটককে ভারতে আসার কোনো ভিসা ফি দিতে হবে না বলে জানিয়েছিলেন দেশটির অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন।

বিশ্বের অনেক দেশের ন্যায় করোনায় নাজেহাল ভারত। তবে ধীরে ধীরে পরিস্থিতির অনেকটাই উন্নতির দিকে। এমন অবস্থায় দেশের অর্থনীতির চাকা সচল করতে পর্যটনখাত চালু করে নিজেদের সবচেয়ে শক্তিশালী চালটাই দিয়েছে দেশটি।