মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে যথাযোগ্য মর্যাদায় ১৬ ডিসেম্বর ভোর সকাল ৭টায় উপজেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বিজয়ার্জনে মহান শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জ্ঞাপন করেছেন চকরিয়া প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ।

প্রেসক্লাবের সভাপতি জাহেদ চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মিজবাউল হকের নেতৃত্বে শ্রদ্ধাঞ্জলী জ্ঞাপনকালে উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবদুল মজিদ, ক্লাবের অর্থ সম্পাদক জহিরুল আলম সাগর, তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এম রিদুয়ানু্ল হক, নির্বাহী সদস্য জুনাইদ উদ্দিন, আবুল মনছুর মোঃ মহসিন, ওয়াহিদ হাসান রাহী, রাজু দাশ, জুলফিকার আলী ভূট্টোসহ চকরিয়া প্রেসক্লাব কর্মকর্তা ও সদস্যরা।

এদিন শহীদ বেদীতে শ্রদ্ধা জ্ঞাপনের পর ক্লাব নেতৃবৃন্দ বিজয় মঞ্চে স্থাপিত অস্থায়ী পতাকা উত্তোলন মঞ্চে দাঁড়িয়ে শ্রদ্ধা জানান।

এরপর সকাল সাড়ে ৮টায় উপজেলা পরিষদ চত্ত্বরে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে মাল্যদান ও উপজেলা পরিষদ শহীদ মিনারেও ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

এদিন প্রেসক্লাবের আয়োজনে বিজয় দিবসের আরো বিভিন্ন কর্মসূচি উদযাপন সহ সরকারি সকল কর্মসূচিতে অংশ নেন ক্লাব নেতৃবৃন্দরা।

কর্মসূচিতে সাথে ছিলেন, চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব জাফর আলম, চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুল করিম সাঈদী, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ শামসুল তাবরীজ, পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) তানভীর হোসেন, এএসপি সার্কেল (চকরিয়া-পেকুয়া) তফিকুল আলম, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাকের মোহাম্মদ যুবায়ের, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী,উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মকছুদুল হক চট্টু, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেসি চৌধুরী,মুক্তিযোদ্ধা হাজী আবু মোঃ বশিরুল আলম, জেলা পরিষদ সদস্য আলহাজ্ব লায়ন কমর উদ্দিন, জেলা আওয়ামীলীগ সদস্য আমিনুল রশিদ দুলাল, আইনজীবি সমিতির সাবেক সভাপতি এডভোকেট লুৎফুল কবির, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু, সাধারণ সম্পাদক আতিক উদ্দিন চৌধুরীসগ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা কর্মীরা।

বক্তারা বলেন, ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় বাঙালি জাতির সবচেয়ে গৌরবোজ্জ্বল দিন। পরাধীনতার শৃঙ্খলমুক্তির দিন। এদিনে স্বাধীনতার জন্য যে অকুতোভয় বীর সন্তানেরা নিজেদের জীবন উৎসর্গ করেছেন, গভীর বেদনা ও শ্রদ্ধায় তাদেরকে স্মরণ করছি।

তবে, চলমান করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে এবার বিজয় দিবস উদ‌যাপনে জাতীয় পর্যায়ে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করা হয়েছে।