বাংলাদেশি নারী রকস্টার মিলার সন্ধান পেলেই তাকে গ্রেপ্তার করবে পুলিশ। সাবেক স্বামী পারভেজ সানজারির ওপর অ্যাসিড হামলার মামলায় এই গায়িকার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা এবং পলাতক থাকায় ক্রোকি পরোয়ানা জারি করেছে ঢাকার অ্যাসিড দমন ট্রাইবুনালের জেলা জজ।

শুধু মিলা নয়, গ্রেপ্তারি ও ক্রোকি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে তার সহযোগী কিম জন পিটার হালদারের বিরুদ্ধেও। ইতোমধ্যে তাদের খুঁজতে শুরু করেছে পল্লবী থানা পুলিশ। সন্ধান পেলেই হাতকড়া পড়বে দুজনের হাতেই।

এ ব্যাপারে পল্লবী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী ওয়াজেদ আলী বলেন, ‘মিলা ও তার সহযোগীকে গ্রেপ্তারে তল্লাশি চলছে। বৃহস্পতিবার রাতেও মিলার মিরপুরের বাসায় তল্লাশি চালানো হয়। কিন্তু এখনও তিনি ধরাছোঁয়ার বাইরে। আশা করি, শিগগিরই তাদের গ্রেপ্তার করে আদালতে সমর্পণ করতে পারব।’

মিলার সহযোগী কিম ২০১৯ সালের জুলাই মাসে ঢাকা ক্যান্টনমেন্টের একটি বাসা থেকে গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে যান। পরবর্তীতে জামিন নিয়ে তিনি আর আদালতে হাজিরা দেননি। অন্যদিকে, মিলা এই মামলার এক নম্বর আসামি হয়েও কখনোই আদালতে হাজিরা দেননি।

এই কারণে মিলা ও কিমের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে আদালত। সেই পরোয়ানা গত ৯ ফেব্রুয়ারি পল্লবী থানায় পৌঁছায়। এরপর থেকেই পল্লবী থানা পুলিশ মিলা ও তার সহযোগীকে খুঁজছে। কিন্তু দুজনের কাউকেই পাওয়া যাচ্ছে না। দুই আসামির পরিবারও নাকি তাদের অবস্থান সম্পর্কে কিছু জানেন না।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ২ জুন সাবেক স্বামীর ওপর অ্যাসিড নিক্ষেপের মামলায় সিআইডির তদন্তে অভিযুক্ত হন মিলা ও তার সহযোগী কিম। ২০২০ সালের ৩০ ডিসেম্বর সিআইডি আদালতে চার্জশিট দেয়। গত ২৮ জানুয়ারি মিলা ও কিমের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি ও ক্রোকি পরোয়ানা জারি করা হয়।