জনগণকে করোনাভাইরাসের টিকার প্রতি আস্থাশীল করতে আগামীকাল রবিবার টিকা নেবেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এছাড়া স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলমও টিকা নেয়ার কথা জানিয়েছেন।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, রবিবার জাতীয়ভাবে করোনার টিকাদান কার্যক্রম শুরু হবে। এদিন রাজধানীর শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে এই টিকা নেবেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডিজি।

মহামারি করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক বহুল কাঙ্ক্ষিত টিকা ইতিমধ্যে দেশে চলে এসেছে। গত ২৭ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে করোনাভাইরাসের টিকা কর্মসূচির উদ্বোধন করেন৷ ওই দিন বিভিন্ন পেশা ও শ্রেণির ২৭ জনকে টিকা দেয়া হয়৷ পরদিন দেয়া হয় ঢাকার পাঁচ শতাধিক স্বাস্থ্যকর্মীকে৷ সেদিনই স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, সবাইকে যখন টিকা দেয়া হবে তখন তিনিও টিকা নেবেন।

ইতিমধ্যে দেশের ৬৪ জেলায় করোনার টিকা পৌঁছে গেছে৷ ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে পুরোদমে টিকা দেয়া শুরু হচ্ছে৷ যারা ইতিমধ্যে নিবন্ধন করেছেন তারা প্রথমে টিকা পাবেন।

সরকারের হাতে এখন অক্সফোর্ডের ৭০ লাখ টিকা আছে৷ এরমধ্যে ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের ৫০ লাখ এবং ভারত সরকারের উপহারের ২০ লাখ৷ অক্সফোর্ডের এই মোট ৭০ লাখ টিকা দিয়ে ব্যাপকভিত্তিক টিকা কার্যক্রম শুরু হচ্ছে৷ আরও দুই কোটি টিকা আসবে সেরাম থেকে পর্যায়ক্রমে৷