টেকনাফে পানিতে ডুবে এক শিশুর মৃত্যু হয়। এদিকে উপজেলায় গোমতী নদীতে গোসল করতে গিয়ে দুই বোন নিখোঁজ হয়। ১১ সেপ্টেম্বর  শুক্রবার এ দুর্ঘটনা ঘটে।

টেকনাফের শালবন রোহিঙ্গা শরাণার্থী শিবিরের পুকুরে ডুবে উম্মে রোমান (১০) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়। এ সময় মনোয়ার নামে আরও এক শিশুকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। তারা দুজন এই ক্যাম্পের ডি-ব্লকের মোহাম্মদ সেলিমের সন্তান।

শুক্রবার সকালে টেকনাফের জাদিমুরা শালবাগানের পাহাড়সংলগ্ন পুকুরে এ ঘটনা ঘটে। টেকনাফের নয়াপাড়া নিবন্ধিত শরাণার্থী শিবিরের এপিবিএনের পুলিশ চৌকির (ইনচার্জ) ইন্সপেক্টর রাকিবুল ইসলাম বলেন, শালবন রোহিঙ্গা শিবিরের ভেতরে পুকুরে ভাসমান অবস্থায় মুমূর্ষু অবস্থায় দুই শিশুকে উদ্ধার করে স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া যায়। সেখানে থাকা চিকিৎসক ওই শিশুকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে কুমিল্লার তিতাস উপজেলায় গোমতী নদীতে দাদির সঙ্গে গোসল করতে গিয়ে দুই বোন নিখোঁজ হয়েছে। গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টায় উপজেলার জিয়ারকান্দি ইউনিয়নের রসুলপুর গ্রামের দক্ষিণ পাশের গোমতী নদীতে এ ঘটনা ঘটে। তারা রসুলপুর গ্রামের হোসেন মিয়ার মেয়ে ফাতেমা (৬) এবং মহাসিন মিয়ার মেয়ে মনিজা (৭)। তারা সর্ম্পকে চাচাতো বোন।