ভারতের কিংবদন্তি সংগীত শিল্পী লতা মঙ্গেশকর আর নেই। আজ রবিবার সকালে ৯২ বছর বয়সে না ফেরার দেশে চলে গেলেন তিনি। খবরটি নিশ্চিত করেছেন তার ছোটবোন গায়িকা ঊষা মঙ্গেশকর।

নতুন বছরের জানুয়ারির শুরুর দিকে করোনায় আক্রান্ত লতা মঙ্গেশকরকে দক্ষিণ মুম্বাইয়ের ব্রিচ ক্যান্ডি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

তিনি নিউমোনিয়ায়ও ভুগছিলেন। পরে তাকে আইসিইউতে নেওয়া হয়। ধীরে ধীরে অবস্থার উন্নতিও হয়। কিন্তু শনিবার (০৫ জানুয়ারি) লতা মঙ্গেশকরের শারীরিক অবস্থার আবার অবনতি হয়।

পরে তাকে ভেন্টিলেটর সাপোর্টে নেওয়া হয়। প্রায় ২৮ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর আজ রবিবার স্থানীয় সময় সকাল ৮টা ১২ মিনিটে লতা মঙ্গেশকরের মৃত্যু হয়। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. প্রতীত সামদানির বরাত দিয়ে এএনআই জানিয়েছে, মাল্টি অর্গান ফেইলিউরে মৃত্যু হয়েছে লতা মঙ্গেশকরের।

লতা মঙ্গেশকরের জন্ম ১৯২৯ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর।

তিনি এক হাজারেরও বেশি ভারতীয় ছবিতে গান করেছেন। এছাড়া ভারতের ৩৬টি আঞ্চলিক ভাষাতে ও বিদেশি ভাষায় গান গাওয়ার একমাত্র রেকর্ডটি তারই। তিনি ৩টি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, ১৫টি বাংলা চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি পুরস্কার, ৪টি শ্রেষ্ঠ নারী নেপথ্য কণ্ঠশিল্পী বিভাগে ফিল্মফেয়ার পুরস্কার, ২টি বিশেষ ফিল্মফেয়ার পুরস্কার, ফিল্মফেয়ার আজীবন সম্মাননা পুরস্কারসহ অসংখ্য পুরস্কার অর্জন করেছেন।

১৯৮৯ সালে ভারত সরকার তাকে দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারে ভূষিত করে। সঙ্গীতে অবদানের জন্য ২০০১ সালে তাকে ভারতের সর্বোচ্চ সম্মাননা ভারতরত্নে ভূষিত করা হয়; এম. এস. সুব্বুলক্ষ্মীর পর এই পদক পাওয়া তিনিই দ্বিতীয় সংগীতশিল্পী।

২০০৭ সালে ফ্রান্স সরকার তাকে ফ্রান্সের সর্বোচ্চ অসামরিক সম্মাননা লেজিওঁ দনরের অফিসার খেতাবে ভূষিত করে।