অবস্থার উন্নতি অব্যাহত থাকলেও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ‘শঙ্কামুক্ত’ নন বলে জানিয়েছেন হোয়াইট হাউজে কর্তব্যরত তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক। কিন্ত এরমধ্যেই হাসপাতাল ছেড়ে হোয়াইট হাউজে পাড়ি জমিয়েছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এমনটাই জানিয়েছে দ্য গার্ডিয়ান।

যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় সোমবার (৫ অক্টোবর) সন্ধ্যায় তাকে ওয়াশিংটনের ওয়াল্টার রিড ন্যাশনাল মিলিটারি মেডিক্যাল সেন্টার থেকে ছাড়পত্র দেওয়ার কথা। তার আগে প্রেসিডেন্ট নিজেই এদিন টুইটারে হাসপাতাল ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন। তবে ট্রাম্পের ব্যক্তিগত চিকিৎসক তার সার্বিক শারীরিক পরিস্থিতি সম্পর্ক কোনো তথ্য প্রদানে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। তবে তিনি যে পুরোপুরি শঙ্কামুক্ত নন সে বিষয়টি পরোক্ষভাবে জানান চিকিৎসক সিন কোনলি। মার্কিন সংবাদমাধ্যম এবিসি নিউজের প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

গত বৃহস্পতিবার রাতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও তার স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্পের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার কথা জানা যায়। মেলানিয়ার মৃদু উপসর্গ থাকলেও হোয়াইট হাউজে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে অক্সিজেন দিতে হয়েছিল। এরপরই তাকে মেরিল্যান্ডের ওয়াল্টার রিড ন্যাশনাল মিলিটারি মেডিক্যাল সেন্টারে ভর্তি করা হয়। কিন্তু রবিবার আচমকাই বেরিয়ে পড়েন ট্রাম্প। সমর্থকদের উদ্দেশে হাত নাড়ার পাশাপাশি নিজের গাড়িতে বেশ কিছুক্ষণ ঘোরাঘুরি করেন তিনি। প্রেসিডেন্টের এমন কর্মকাণ্ড নিয়ে ইতোমধ্যে দেশটিতে প্রশ্ন উঠেছে।

সোমবার বিকেলে টুইট বার্তায় ট্রাম্প হাসপাতাল ছাড়ার ঘোষণা দেওয়ার পর তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক সিন কোনলি সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর ট্রাম্পের লক্ষণ খারাপ হয়ে পড়ার উদ্বেগ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তার চিকিৎসক ‘সতর্কভাবে আশাবাদী’ রয়েছে এবং তাকে সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে রাখা হবে।

সিন কোনলি বলেন, ‘ওষুধ গ্রহণকারী কোনও রোগী যখন কেবল তার কোর্স শুরুর প্রাথমিক পর্যায়ে থাকে তখন আমরা খানিকটা অনিশ্চিত পরিস্থিতির মধ্যে থাকি। তবে যদি সোমবার দিনভর আমরা তাকে একই অবস্থায় কিংবা উন্নতি হচ্ছে এমন অবস্থাতেও পাই তাহলে আমরা চূড়ান্ত স্বস্তির নিঃশ্বাস নিতে পারবো।’

হাসপাতাল থেকে ফেরার পর ট্রাম্পের জন্য সার্বক্ষণিক হোয়াইট হাউজের চিকিৎসক দল প্রস্তুত থাকবে বলেও জানান সিন কোনলি। ভাইরাসটির বিস্তার ঠেকাতে কোন ধরণের পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে জানতে চাইলে কোনলি বলেন ট্রাম্পের আশেপাশে থাকা সব নিরাপত্তা কর্মী ও চিকিৎসক দল সব সময়ে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী পরে থাকবেন। তিনি বলেন, ‘হোয়াইট হাউজের সবকিছু নিরাপদ রাখতে আমরা সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিতে কাজ করছি।’

ট্রাম্পের সর্বশেষ করোনা পরীক্ষার ফলাফল নেগেটিভ এসেছে কিনা তা জানাতে অস্বীকৃতি জানান সিন কোনলি। এছাড়া প্রেসিডেন্টের সিটি স্ক্যানের ফলাফল সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, তা বলার ‘স্বাধীনতা আমার নেই।’