ফুসফুসে পানি জমে শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় করোনায় আক্রান্ত বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) স্থানান্তর করা হয়েছে।

সোমবার বিকাল চারটার দিকে তাকে কেবিন থেকে সিসিইউতে স্থানান্তর করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন তার চিকিৎসক দলের একজন সদস্য।

করোনায় আক্রান্ত খালেদা জিয়ার শারীরিকভাবে স্থিতিশীল আছেন এমনটা চিকিৎসকরা গত কয়েক দিন ধরে বলে আসছিলেন। ইতিমধ্যে তার মেডিকেল বোর্ডের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শারীরিক নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। তবে এরমধ্যেই শারীরিক জটিলতা দেখা দেয়ায় সিসিইউতে নেয়া হলো সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, কয়েকদিন ধরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বেগম খালেদা জিয়ার ফুসফুসে পানি জেমেছে। ফলে তার শ্বাস নিতে সমস্যা হচ্ছে।

বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খানের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি ঢাকাটাইমসকে বলেন, ‘আমিও খবরটি শুনেছি। কিন্তু নিশ্চিত হতে পারিনি। আমি হাসপাতালে যাচ্ছি।’

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে এভারকেয়ার হাসপাতালে নেয়া হয় খালেদা জিয়াকে। কিছু পরীক্ষার পর রাত ১২টার দিকে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালে ভর্তি খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য ১০ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। ওই মেডিকেল বোর্ডের পরামর্শেই এভারকেয়ার হাসপাতালে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীর চিকিৎসা চলছে।

১১ এপ্রিল খালেদা জিয়ার করোনাভাইরাস আক্রান্ত হওয়ার কথা জানায় বিএনপি। সবশেষ ২৫ এপ্রিল দ্বিতীয়বার খালেদা জিয়ার করোনা পরীক্ষার নমুনা জমা দেয়ার পর আবারো তার পজিটিভ আসে। যদিও চিকিৎসকদের দাবি, তার করোনার কোনো উপসর্গ নেই। ফলে হাসপাতালে নন কোভিড ইউনিটে তার চিকিৎসা চলছে।