প্রযুক্তিগত উন্নতির মতো একাধিক কারণে অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনেই অভ্যস্ত হয়ে পড়েছি আমরা বেশিরভাগ। বাড়ছে ফাস্ট ফুডের প্রতি ঝোঁক। এক জায়গায় বসে ঘন্টার পর ঘন্টা কাজ, শারীরিক পরিশ্রমের অভাবে শরীরে অতিরিক্ত মেদ বা চর্বিজাতীয় পদার্থ জমা হয়ে শরীরের ওজন বেড়ে যায়। তবে ওজন ঝরাতে গেলে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সকালের নাস্তা যেন মিস না হয়।

সকাল সকাল নিয়ম মেনে খাবার খান আর সুস্থ থাকুন দিনভর। ওজন কমাতে চাইলে সকালের নাস্তাকে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেওয়া উচিত। মধ্যাহ্নভোজ বা রাতের খাবারের তুলনায় সকালের নাস্তা অনেকটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

ওজন কমানোর জন্য শরীরের প্রয়োজন অনুযায়ী পানি খাওয়া আর সেই সঙ্গে খাবারদাবারে নজর দেওয়াও সমান গুরুত্বপূর্ণ। ডায়েট মেনে বা খুব নিয়ম অনুযায়ী খাওয়াদাওয়া করার সুযোগ ঘটে না অনেকেরই। তবু একটু সচেতন হলে ওজন বাড়াতে পারে এমন সব খাবারের তালিকা থেকে সহজেই বাদ দেওয়া যায়। বরং তার জায়গায় নিয়ে আসুন স্বাস্থ্যকর কিছু খাবারদাবার।

প্রতিদিনের সকালের নাস্তা থেকে ডিনার পর্যন্ত নানা ধাপে এই সব খাবার পাতে যোগ করলেই সুফল পাবেন অনেকটা। সঙ্গে একটু হাঁটাহাঁটি ও পর্যাপ্ত পানি খাওয়ার মধ্য দিয়ে কমবে ওজন। দূরে থাকবে অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনের ফলে হওয়া নানা অসুখবিসুখ। ওজন কমালে শুধুমাত্র আপনি সুস্থ থাকবেন তাই নয়, বেশ কয়েকটা রোগের হাত থেকেও আপনার মুক্তিলাভ সম্ভব। নিয়মিত রক্তচাপ, রক্তে শর্করার মাত্রা পরীক্ষা করানো আমাদের পক্ষে সম্ভব হয় না। কিন্তু ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারলে এগুলো এমনিতেই অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে থাকে। এ ছাড়াও ওজন কমালে শরীর বেশ ঝরঝরে লাগে। এনার্জি লেভেলও ফিরে আসে। দেখে নিন সেগুলো কী কী-

সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় প্রোটিনসমৃদ্ধ সকালের নাস্তার গুরুত্বের কথা বলা হয়েছে। জানা গিয়েছে প্রোটিনে পূর্ণ সকালের নাস্তা কিশোর কিশোরীদের মধ্যে অতিরিক্ত খিদে পাওয়ার প্রবণতাকে নিয়ন্ত্রণে রাখে। এবং তাদের ওজন বেড়ে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে। প্রোটিন জাতীয় খাবার ব্রেন এবং কেন্দ্রীয় স্নায়ুতন্ত্রকে সুস্থ রাখে।

দিনের শুরুতেই এক কাপ কালো চা বা কফি আসলে আপনার ওজন ঝরানো সহায়ক এটা কি জানতেন। আমেরিকান জার্নাল অব ক্লিনিক্যাল নিউট্রিশমের মতে, ক্যাফিন মেটাবলিজম বাড়ায়। এবং অক্সিডেশনও বৃদ্ধি করে তাই সকালের নাশতায় কিন্তু ক্যাফেইন রাখতেই হবে।

সকালের পানীয়ে চিনি দেবেন না। তা সে দুধের তৈরি কোন রকম শেক হোক বা কোনও ফলের রস। চিনি ছাড়া ফল বা ফলের রস শরীরের জন্য অনেক বেশি উপকারী।

অনেকেই হয়তো জানেন না যে, শস্যদানার মধ্যে বেশ অনেকটা চিনির মতোই কার্বোহাইড্রেড থাকে তাই সকালের নাস্তায় শস্যদানা রাখলে ওজন কমার বদলে আরও বেড়ে যেতে পারে। ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের প্রকাশিত একটি রিপোর্টে দেখা গিয়েছে শিশুদের ক্ষেত্রে কার্টুনের পাশাপাশি সকালে শস্য খাওয়ার অভ্যাস আরও বেশি করে তাদের অতিরিক্ত ওজন বৃদ্ধির কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

তবে ওজন ঝরাতে গেলে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সকালের নাস্তা যেন মিস না হয়। সকাল সকাল নিয়ম মেনে খাবার খান আর সুস্থ থাকুন দিনভর।