ব্রিটিশ কনজারভেটিভ পার্টির প্রধানের পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন।

বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) স্থানীয় সময় দুপুরে ১০ নং ডাউনিং স্ট্রিটে এক সংবাদ সম্মেলনে পদত্যাগের ঘোষণা দেন তিনি।

এই পদক্ষেপের ফলে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর পদও হারালেন বরিস জনসন। নতুন প্রধানমন্ত্রী নির্বাচন করার ব্যাপারে আগামী সপ্তাহে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তবে চলতি গ্রীষ্মে কনজারভেটিভ পার্টির একজন নতুন নেতা নির্বাচন এবং অক্টোবরে দলীয় সম্মেলনের সময় নতুন প্রধানমন্ত্রী আসা পর্যন্ত বরিস প্রধানমন্ত্রীর পদে বহাল থাকবেন।

নিজের বক্তৃতার প্রথমেই বরিস তার স্ত্রী ক্যারি, তাদের সন্তান, ব্রিটেনের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিস, সেনাবাহিনী ও ডাউনিং স্ট্রিটের কর্মীদের ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন, ‘আমি সবাইকে জানাতে চাই পৃথিবীর সবচেয়ে ভালো চাকরিটি ছেড়ে দিতে আমি কতটা মর্মাহত।’

ওয়েস্টমিন্সটারে দলীয় মনোভাব খুবই শক্তিশালী উল্লেখ করে বরিস বলেন, দল যখন অগ্রসর হওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় তখন তা অগ্রসর হয়।

বরিস জানান, তাদের যে ম্যান্ডেট সেখানে এমন সময়ে সরকার পরিবর্তন করা অদ্ভুত হবে বলে সহকর্মীদের বোঝানোর চেষ্টা করেছিলেন তিনি। তবে তাতে সফল না হওয়ায় দুঃখ প্রকাশ করেন তিনি।

বরিস আরও বলেন, তিনি যা যা করেছেন তা নিয়ে তিনি খুবই গর্বিত। যেমন ব্রেক্সিট পরিচালনা করা, মহামারি মোকাবেলা করা ও রাশিয়ার ইউক্রেন আক্রমণের বিরুদ্ধে ইউরোপকে সুসংহত করতে নেতৃত্ব দেয়া।