সার্বিক সেবা নিশ্চিত করতে সাংবাদিকদের সহযোগিতা চেয়ে কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মো. হাসানুজ্জামান বলেছেন, কক্সবাজারে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় পুলিশ বদ্ধপরিকর। পুলিশ জনবান্ধব হয়ে সেবা নিশ্চিত করতে চায় সেজন্য সাধারণ মানুষের সেবা করতে পুলিশ অঙ্গীকারাবদ্ধ। তাই কক্সবাজারের সকল থানা সকল প্রকার দালালমুক্ত থাকবে। ভুক্তভোগী মানুষ পুলিশ কর্মকর্তার সাথে আলাপ করে তাঁর আইনি সহায়তা গ্রহণ করবে। এর ব্যতিক্রম হলে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কক্সবাজার প্রেসক্লাবে যান কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দের সাথে সৌজন্য সাক্ষাতে আজ মঙ্গলবার (২৭ অক্টোবর) দুপুরে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। পরে কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু তাহেরসহ শীর্ষ সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ ও নবাগত এসপি একে অপরকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি আবু তাহের এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেখানে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

হাসানুজ্জামান বলেন, কক্সবাজার এসে সাংবাদিকদের সাথে ফুল দিয়ে পরিচয় হলাম। এই জেলায় এমনভাবে কাজ করতে চাই যাতে মানুষের কল্যাণ হয়। আর বিদায়বেলায় কাজের মূল্যায়ন করে যেন সাধারণ মানুষ ফুল দিয়ে বিদায় জানান।

এসপি বলেন, সরকার ঘোষিত মাদকের বিরুদ্ধে জিরো ট্রলারেন্স নীতি মেনে পুলিশ কাজ শুরু করেছে। ব্যাকওয়ার্ড-ফরোয়ার্ড শনাক্ত করে মাদক নির্মূলে কাজ চালানো হবে। ছিনতাই-খুন সহ কোন প্রকার অপরাধীদের ছাড় দেয়া হবে না। এজন্য সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের সহযোগিতা পুলিশের দরকার।

কক্সবাজারের যানজটকে অন্যতম সমস্যা উল্লেখ্য করে হাসানুজ্জামান বলেন, কক্সবাজারের যানজট নিরসনে পুলিশ নানামুখী উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। এর ফলাফলও দ্রুত জেলাবাসী দেখবে। একইসাথে পরিবহণ সেক্টরসহ যেকোনো চাঁদাবাজি বন্ধে পুলিশ জোরালো ভূমিকা গ্রহণ করবে।

কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জাহেদ সরওয়ার সোহেল এর সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) পংকজ বড়ুয়া, বাংলাদেশ ফেডারেশ সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্য এডভোকেট আয়াছুর রহমান, মুজিবুল ইসলাম, তোফায়েল আহমদ, আবদুল কুদ্দুস রানা, নজিবুল ইসলাম, সরওয়ার আজম মানিক, ফরহাদ ইকবাল, দীপক শর্মা দীপু, মাহবুবুর রহমান, ইমরুল কায়েস, সুজাউদ্দিন রুবেল প্রমুখ। এছাড়াও আরও উপস্থিত ছিলেন পুলিশ ইন সার্ভিসের পুলিশ সুপার তারিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মো. রফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) আবদুল্লাহ মামুন, ডিএসবি’র এএসপি খন্দকার গোলাম শাহনেওয়াজ, কক্সবাজার সদর থানার ওসি শেখ মুনীর উল গীয়াসসহ অন্যান্যরা।