প্রবাল ডেস্ক : এবার দিল্লি এইমসের একদল চিকিৎসকই জানালেন সুশান্তের মৃত্যুর আসল কারণ।
হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, এইমসের চিকিৎসকরা সিবিআইকে জানান, সুশান্ত সিং রাজপুতকে হত্যা করা হয়নি, তিনি আত্মহত্যাই করেছেন।
এর আগে বলিউড অভিনেতা সুশান্তের পরিবারের আইনজীবী বিকাশ সিং দাবি করেছিলেন যে, তাকে এইমসের এক চিকিৎসক জানিয়েছেন অভিনেতাকে গলা টিপে হত্যা করা হয়েছিল। কিন্তু এই দাবি যথার্থ নয় বলে জানালেন এইমসের ফরেনসিক টিমের প্রধান।
বিষক্রিয়ায় সুশান্তের মৃত্যু বা তাকে শ্বাসরোধ করে খুন করার সম্ভাবনা উড়িয়ে দিয়েছেন এইমসের ওই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দল।
গত ১৪ জুন বান্দ্রার ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় সুশান্ত সিং রাজপুতের মরদেহ। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে প্রাথমিকভাবে মুম্বাই পুলিশ জানায়, গলায় ফাঁস লাগার ফলে দমবন্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে সুশান্তের।
তবে পুলিশের এ কথা মানতে পারেননি অভিনেতার পরিবার এবং অনুরাগীরা। বলিউডের অনেক তারকাও সুশান্তের মৃত্যু প্রসঙ্গে প্রশ্ন তুলেছিলেন।
এরপর মুম্বই ও বিহার পুলিশের ঠাণ্ডা লড়াই এবং নানা ঘটনার পর তদন্তভার যায় সিবিআইয়ের হাতে। পাশাপাশি সুশান্তের ময়নাতদন্তের রিপোর্ট খতিয়ে দেখতে দিল্লি এইমসের চারজন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞ নিয়ে গঠিত হয় তদন্ত কমিটি। কমিটির প্রধান করা হয় এইমসের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের প্রধান ড. সুধীর গুপ্তাকে। এর আগেও সিবিআইয়ের সঙ্গে একাধিক হাইপ্রোফাইল মামলায় কাজ করেছেন তিনি।
হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, এইমসের প্যানেল তাদের যাবতীয় বিষয় খতিয়ে দেখে তদন্ত রিপোর্ট সিবিআইয়ের হাতে জমা দিয়েছে। মৃত্যুর পর মুম্বাইয়ের কুপার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল সুশান্তকে। সেখানেই তার ময়নাতদন্ত হয়েছে। সেই প্রতিবেদনের সঙ্গে এইমসের চিকিৎসকদের কমিটি একমত পোষণ করেছে।