চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে মানুষের ঢল নেমেছে। বানের স্রোতের মত আসছে মানুষ।

আজ শনিবার( ১৯ সেপ্টেম্বর) মরদেহ হাটহাজারী পৌঁছলে তাকে একনজর দেখার জন্য মাদরাসা গেইট ও মহাসড়কে জড়ো হতে থাকেন হাজার হাজার ছাত্র ও বিভিন্ন স্তরের ভক্তকুল।

শাহ আহমদ শফীর মরদেহ শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টার সময় চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদরাসায় এসে পৌঁছে। হাটহাজারীতে পৌঁছার সাথে সাথে  সেখানে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। ভোর সকাল থেকে অপেক্ষা করা হাজার হাজার মানুষ কান্নায় ভেঙ্গে পড়ে।

মরদেহ হাটহাজারী মাদরাসার একটি কক্ষে রাখা হয়েছে। জোহরের নামাজ পর্যন্ত তাকে শেষ বারের মতো দেখার জন্য কফিন সেখানে রাখা হবে। বাদ জোহর (দুপুর ২টায়) হাটহাজারী মাদরাসা মাঠে অনুষ্ঠিত হবে নামাজে জানাযা। পরে  তাকে মাদরাসার কবরস্থানে দাফন করা হবে

শনিবার ২টায় নামাজে জানাযার নির্ধারিত সময় দেয়া থাকলেও ঘনকুয়াশার মধ্যে  সকাল হওয়ার আগেই মাদরাসা মাঠ ও হাটহাজারী পার্বতী উচ্চ বিদ্যালয়ে বিশাল মাঠে  মুসল্লিদের উপস্থিতিতে তিল ধারণের ঠাঁই নেই। সারাদেশ থেকে লক্ষ লক্ষ ধর্মপ্রাণ তৌহিদী জনতা শফি হুজুরের জানাযায় শরিক হবার জন্য হাটহাজারীতে উপস্থিত হচ্ছেন।

আইন শৃংখলায় নিয়োজিত পুলিশ,র‌্যাব সদস্যরা মাদরাসা যাওয়ার সব রাস্তা গাড়ি চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। হাটহাজারী হয়ে চট্টগ্রাম যাওয়ার পথে যান চলাচল বন্ধ (সকাল ৬ টা হতে জানাজা শেষ হওয়া পর্যন্ত) থাকবে। ঘাগড়া-বড়ইছড়ি-কাপ্তাই রোড ব্যবহার করে চট্টগ্রাম যাওয়া আসা করার জন্য সকলকে অনুরোধে করা হচ্ছে ট্রাফিক বিভাগ, রাংগামাটি পার্বত্য জেলা। হাটহাজারী বাসস্টেশন চত্বর ছাড়িয়ে সেই জনস্রোত বিস্তৃত হয়েছে আশপাশের সড়কে। দীর্ঘ সময় লাইনে দাঁড়িয়ে বড় হুজুরকে এক নজরে দেখতে হাজার হাজার মানুষের ভীড় । বেলা ২টার সময় হাটহাজারী মাদরাসায় নামাজের জানাযা অনুষ্টিত হবে।