ইয়াবা আসক্ত স্বামীর ছুরিকাঘাতে টেকনাফের হ্নীলায়  ৫ সন্তানের জননী গুরুতর আহত হয়েছে। এ ব্যাপারে টেকনাফ মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

জানা যায়, ২৬ জানুয়ারী রাত সাড়ে ৭ টার দিকে টেকনাফ উপজেলার হ্নীলা নাটমুরা পাড়া গ্রামের আবদুল জলিলের  ছেলে মোহাম্মদ সেলিম চৌধুরী প্রতিবারের মত যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে । স্ত্রী যৌতুকের টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে সেলিম চৌধুরী রাগান্বিত হয়ে ঘরে থাকা ধারালো চাকু দিয়ে স্ত্রীর মাথায় জোরালো আঘাত করে । এতে স্ত্রীর মাথায় মারাত্মক ভাবে জখম হয়ে ব্যাপক রক্তক্ষরণ হয়েছে বলে  আহত রোজিনার বড় ভাই মোঃ আজিজ  জানান। মাদকাসক্ত সেলিম চৌধুরী ছুরিকাঘাত করে ক্ষান্ত হননি ,এলোপাথাড়ি কিলঘুষি মেরে শরীরের বিভিন্ন অংশে মারাত্মক জখম করেছে বলে থানায় দায়েরকৃত অভিযোগ পত্রে জানা যায়। হ্নীলা ইউপির ৬ নং ওয়ার্ডের উলুচামরীর হামজারছড়া গ্রামের কয়েক বছর ধরে বসবাসরত সেলিম প্রায় সময় যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে মারধর করত বলে পরিবারের সদস্যরা জানান। এব্যাপারে বেশ কয়েকবার শালিশ ও হয়েছিল। শালিশে এমন অন্যায় কাজ করবেনা মর্মে মুচলেকা দিয়ে স্ত্রী-সন্তান ফিরিয়ে নিয়ে আবার র্নিযাতন করতে থাকে মাদকসেবী সেলিম।

নির্যাতনের শিকার রোজিনা অভিযোগ পত্রে উল্লেখ করেন, সেলিম ঠিকমত ভরণ পোষণ দিতনা, মরণ নেশা ইয়াবা সেবন করে প্রায় শারিরিক ও মানসিক র্নিযাতন করে। তাদের তের বছরের সংসারে ৪ ছেলে ১ মেয়ে রয়েছে। সেলিম মাদক ছেড়ে হয়ত ভাল হয়ে যাবে ভেবে সন্তানদের ভবিষ্যত চিন্তা করে তার অমানবিক নির্যাতন সহ্য করে এতদিন সংসার করে এসেছি। কিন্ত সে রুপ পরির্বতন করতে পারেনি। রোজিনা জানান, দেখতে অনেকটা ভদ্র মনে হলেও সেলিম ইয়াবা আসক্ত । আমাকে ছুরিকাহত ও মারধর করে ছোট বাচ্চাসহ বাড়ি থেকে বের করে দেয় এবং জীবন নাশের হুমকি দেয়। এখন আমি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

জীবনের নিরাপত্তা ও ন্যায় বিচার চেয়ে গুরুতর আহত রোজিনা টেকনাফ মডেল থানায় অভিযোগ করেছেন।