দক্ষিণ চট্টলার পরিচ্ছন্ন ও দাপুটে রাজনীতির পথিকৃৎ, উখিয়া-টেকনাফ (কক্সবাজার-৪) আসন থেকে আওয়ামীলীগ দলীয় সাবেক এমপি, বীর মুক্তিযোদ্ধা সদ্য প্রয়াত অধ্যাপক মোহাম্মদ আলীর মেঝো ছেলে সাদা মনের মানুষ খ্যাত রাশেদ মাহামুদ আলী।

রাশেদ হ্নীলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত ও আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব গ্রহণ করার পর বোঝার মত বয়স, নেতৃত্বের সীমাবদ্ধতা। বলতে গেলে একেবারে শূণ্য থেকেই তাঁর যাত্রা।

তবু কাঁধে বিশাল দায়িত্বের বোঝা। বহু চড়াই, উৎরাই অতিক্রম করে এখন হ্নীলা ইউনিয়নের মত প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

নানা সমস্যা-সংকটের ভেতরেও হ্নীলা ইউনিয়নকে একটি আধুনিক ও উন্নয়নশীল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তোলার স্বপ্ন নিয়ে তিনি নিরন্তর কাজ করে চলেছেন।

গত শনিবার তিনি প্রবাল নিউজের মুখোমুখি হয়েছিলেন। প্রায় এক ঘন্টার দীর্ঘ আলাপচারিতায় হ্নীলা ইউনিয়ন ঘিরে চেয়ারম্যান রাশেদের ইউনিয়নের গ্রামীণ সড়ক নিয়ে দুর্ভোগ, শিক্ষার উন্নয়ন, করোনা মোকাবেলা ও গ্রামীণ উন্নয়নে এনজিওদের সাহায্যে সহায়তাসহসহ ইত্যকার নানা বিষয়ে খোলামেলা কথা বলেছেন তিনি। দীর্ঘ সাক্ষাতকারটির চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো পাঠকদের জন্য। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন প্রবাল নিউজ এর নিজস্ব প্রতিবেদক এম.আবদুল হক।

প্রবাল নিউজ : টেকনাফ উপজেলায় শিক্ষা-দীক্ষায় এগিয়ে থাকা হ্নীলা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে আপনার পরিকল্পনা কি?

চেয়ারম্যান : আমার হ্নীলা ইউনিয়নে শিক্ষা প্রতিষ্টান বিশেষ করে প্রাথমিক বিদ্যালয় দরকার। ইতিপূর্বে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট বিভিন্ন ওয়ার্ডে বিদ্যালয় প্রতিষ্টার জন্য আবেদন জানিয়েছি। তন্মধ্যে ০৬ নং ওয়ার্ড (লেচুয়াপ্রাং) এ একটি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রতিষ্টার জন্য জোর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।

প্রবাল নিউজ : বর্তমানে পরিষদের অধীনে কি কি উন্নয়নমূলক কাজ চলছে?

চেয়ারম্যান : কাবিখা, কর্মসৃজনসহ বিভিন্ন প্রকল্পের অধীনে একাধিক উন্নয়নমূলক কাজ ইতিমধ্যে প্রতিটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে চলছে। এছাড়াও বিভিন্ন এনজিও সংস্থা অত্র ইউনিয়নের গ্রামীণ উন্নয়নে অবদান রাখছে। এ ক্ষেত্রে এলাকার চেয়ারম্যান হিসেবে এনজিও সংস্থাগুলোকে আমি সর্বোচ্চ সহযোগীতা দিয়ে যাচ্ছি।

প্রবাল নিউজ : এখন করোনার তৃতীয় ডেউ চলছে এবং এ করোনা প্রতিরোধে বর্তমানে ইউনিয়ন পরিষদ কতটুকু দায়িত্ব পালন করছেন?

চেয়ারম্যান : করোনাকালীন সাধারণ কর্মহীন মানুষের আয় ইনকাম বন্ধ থাকার ফলে পরিবার নিয়ে কষ্ট আছে। এমতাবস্থায় সাধারণ মানুষের কষ্ট লাঘবে সরকারি এবং এনজিও সংস্থা কর্তৃক বিভিন্ন প্রকারের প্রদত্ত সহযোগীতা আমি ও আমার পরিষদের সকলে মিলে প্রদান করে আসছি।

প্রবাল নিউজ : ইতিমধ্যে হ্নীলা বাসষ্টেশনের দুই প্রধান সড়কের একটি পুরাতন বাজার সড়কের কাজ শেষ হয়েছে। অপরদিকে পানখালী সড়কের কাজ এখনো শুরু হয়নি, এ বিষয়ে পরিষদের কোন পরিকল্পনা আছে কিনা?

চেয়ারম্যান : পানখালী সড়কটির ব্যাপারে টেন্ডার দেয়া হয়েছে। এ টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ হলে এলজিইডির অধীনে শিগগিরই পানখালী সড়কের কাজ শুরু হবে ইনশাহ আল্লাহ্।

প্রবাল নিউজ : আগামী নির্বাচন প্রায় চলে আসছে। আপনি এ নির্বাচনে পুনরায় প্রার্থী হবেন কিনা?

চেয়ারম্যান : বর্তমানে এলাকার চেয়ারম্যান হিসেবে আমি জনগনের সেবা করে যাচ্ছি। ইনশাহ্ আল্লাহ ভবিষ্যতেও জনগনের সেবক হিসেবে সেবা করে যাব। ফলে আগামী নির্বাচনে জনগনের দোয়াও ভালবাসা নিয়ে প্রার্থী হব।