১২ সেপ্টেম্বর থেকে সারাদেশে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয় খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

করোনা সংক্রমণের হার কমে আসার কারণে এবং টিকাপ্রাপ্তির বিষয়টি নিশ্চিত হওয়ায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে ইতিবাচক ইঙ্গিত দিলেন মন্ত্রী।

শুক্রবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকালে চাঁদপুর সদর উপজেলার মহামায়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় তিনি বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছুটি আর বাড়ানো হবে না। আমরা আশা করছি ১২ সেপ্টেম্বর থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দিতে পারবো।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর বিষয়ে ভিন্নমত ব্যক্ত করে মন্ত্রী বলেন, এবিষয়ে উপাচার্যদের সাথে আবারও আমাদের বসতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তাদের সিন্ডিকেটের সিদ্ধান্ত মোতাবেক চলে। সুতরাং এ সিদ্ধান্ত তারাই নিবে।

এবিষয়ে তিনি আরও জানান, এর আগে উপাচার্যরা বলেছিলেন টিকার প্রথম ডোজ সব শিক্ষার্থীকে দেয়ার পর অক্টোবরের মাঝামাঝি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খোলার পরিকল্পনার কথা। এখন উনারা যদি অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সাথে একইসঙ্গে খুলতে চান খুলবেন, অথবা উনাদের মতো নতুন তারিখ ঠিক করে খুলবেন।

জাতীয় পরামর্শক কমিটির নির্দেশনার প্রেক্ষিতে শিক্ষা এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় যৌথভাবে ১২ সেপ্টেম্বর সকল স্কুল-কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে উল্লেখ করেন মন্ত্রী।

আগামী ৫ সেপ্টেম্বর আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা রয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সব ধরণের প্রস্তুতি আমাদের রয়েছে। এমনকি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার পরে দৈনিক বাধ্যতামূলক প্রতিবেদন প্রেরণের নির্দেশনা আছে যাতে কঠোরভাবে আমরা পরিস্থিতি মনিটরিং করতে পারি।

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষা সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, আগের ঘোষণা অনুযায়ী পরীক্ষা হবে। অর্থাৎ নভেম্বরের মাঝামাঝি এসএসসি এবং ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা নেয়ার প্রস্তুতি চলছে।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) রাতে এক বৈঠকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার পক্ষে মত দেয় করোনা-সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।