গত ১২ বছরে দেড়শ নারীর গর্ভে তার ১৫০ সন্তান জন্ম নিয়েছে। চলতি বছরের মধ্যে আরও ১০ সন্তান জন্ম নেবে। শুনতে অবাক লাগলেও আর্জেন্টিনার ভারমোন্টের জো নামের এই ব্যক্তির জন্য এটা খুবই মামুলি বিষয়। কারণ তিনি একজন স্পার্ম ডোনার।

বহু নিঃসন্তান দম্পতির কোলে সন্তান তুলে দিয়েছেন ৪৯ বছর বয়সের এই ব্যক্তি। আর্জেন্টিনায় লকডাউনের জন্য আটকে গেলেও সেখানে স্পার্ম ডোনেটের কাজ চালিয়ে গিয়েছেন জো। এরপর তিনি ফিরছেন লন্ডনে। সেখানেও স্পার্ম ডোনেশনের বিশেষ কাজ রয়েছে। পাঁচ মহিলার সঙ্গে দেখা করার অ্যাসাইনমেন্ট নিয়েছেন তিনি।

জো নিজেই জানালেন তার ১৫০টি সন্তান রয়েছে। তার সন্তান নিয়ে এখনও পাঁচজন গর্ভবতী। করোনাভাইরাসের জেরে বিশ্বব্যাপী লকডাউনে তার কাজ যে থেমে নেই, তা বলাই বাহুল্য। বরং লকডাউনে তার কাজের চাপ আরও বেড়েছিল বলে দাবি করেছেন তিনি।

জো বলেন, খুব ভালো লাগে দেখতে যখন একটি শিশু জন্মায়। সন্তানদের মধ্যে অনেকেই দেখতে তার মতো বলে উল্লেখ করেছেন এই স্পার্ম ডোনার। নিঃসন্তান দম্পতিদের হাতে সন্তান তুলে দেয়ার মতো কাজ কজন করেন, তাই নিজের পেশা, নিজের কাজ নিয়ে বেশ গর্বিত জো।

গত মার্চ মাস থেকেই কাজের চাহিদা বেড়েছে বলে জানিয়েছেন জো। কৃত্রিমভাবে স্পার্ম ডোনেট করা ছাড়াও যৌন সম্পর্কের মাধ্যমেও তিনি নিঃসন্তান দম্পতিদের সন্তানসুখ দেন। তিনি বলেন পৃথিবী জুড়ে তাঁর সন্তানেরা ছড়িয়ে রয়েছে। ২০০৮ সাল থেকে এই কাজ করছেন জো।

পেশা নিয়ে তিনি গর্বিত। তাই ৯০ বছর বয়সেও স্পার্ম ডোনেট করার স্বপ্ন দেখেন তিনি। প্রতি বছর ১০টি শিশুর জন্ম দেয়া তার লক্ষ্য। তবে দুই হাজার পাঁচশর বেশি সন্তান উৎপাদন করার ইচ্ছা নেই তার।