১৮ নয়, টিকা পাবার সর্বনিন্ম বয়স ২৫ বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ বি এম খুরশীদ আলম।

শুক্রবার (৬ আগস্ট) সকালে মহাখালীতে বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ানস এন্ড সার্জনস (বিসিপিএস) এর সভা কক্ষে করোনাভাইরাসের টিকা কার্যক্রম নিয়ে আয়োজিত এক ব্রিফিং-এ একথা বলেন তিনি।

ব্রিফিং-এ স্বাস্থ্যমন্ত্রী ড. জাহিদ মালেকের উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও অসুস্থতার কারণে তিনি আসতে পারেননি।

তিনি জানান, ৭ আগস্ট দেশব্যাপী কোরানার টিকাদান কার্যক্রম শুরু হবে। ৭ আগস্ট ইউনিয়ন, পৌরসভা ও সিটি কর্পোরেশনে টিকা কার্যক্রম চলবে। এছাড়া ৮ ও ৯ আগস্ট দুর্গম এলাকায় এবং ১০ ও ১২ আগস্ট বাস্তুচ্যুত ও বয়োজেষ্ঠ্যদের মাঝে টিকা কার্যক্রম চলবে।

টিকা পাবার বয়সসীমা প্রসঙ্গে মহাপরিচালক বলে, ১৮ বছরের অনেকেরই ন্যাশনাল আইডি নেই, ফলে বিশৃঙ্খলা তৈরি হবে। সেজন্য সর্বনিম্ন বয়স ২৫ নির্ধারণ করা হয়েছে।

এছাড়া ইউনিয়ন পর্যায়ে শুরু হতে যাওয়া বর্তমান টিকা কার্যক্রমকে একটি পাইলট প্রজেক্ট উল্লেখ করে স্বাস্থ্যের মহাপরিচালক বলেন, আমরা দেখতে চাই প্রত্যন্ত অঞ্চলে একদিনে কতো পরিমাণে টিকা দিতে আমরা সক্ষম। প্রাথমিকভাবে ৭ থেকে ১২ আগস্টের মধ্যে ৩২ লাখ মানুষকে টিকার আওতায় আনার পরিকল্পনা রয়েছে আমাদের।

এছাড়া বর্তমানে যারা টিকা পাচ্ছেন তাদের জন্য সেকেন্ড ডোজ টিকা হাতে রেখেই প্রদান করা হচ্ছে বলে নিশ্চিত করেন মহাপরিচালক।